পাতা:কৃষ্ণচরিত্র.djvu/২৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


§§ t কৃষ্ণচরিত্র পাণ্ডব কবিকল্পনা মাত্র, কিন্তু পাণ্ডবপত্নী দ্রৌপদীর পঞ্চপতি সত্য, কেন না তদ্বারা সিদ্ধ হইতেছে যে, প্রাচীন ভারতবাসীয়ের চুয়াড় জাতি ছিল, তাহাদিগের মধ্যে স্ত্রীলোকদিগের বহুবিবাহ প্রচলিত ছিল । ফগুসন সাহেব প্রাচীন অট্টালিকার ভগ্নাবশেষে কতকগুলা বিবস্ত্রা স্ত্রীমূৰ্ত্তি দেখিয়া সিদ্ধান্ত করিয়াছেন যে, প্রাচীন ভারতবর্ষে স্ত্রীলোকেরা কাপড় . পরিত না ; এদিকে মথুরা প্রভৃতি স্থানের অপুর্ব ভাস্কৰ্য্য দেখিয়া বিলাতী পণ্ডিতেরা স্থির করিয়াছেন, এ শিল্প গ্রীক্ মিন্ত্রীর। বেবর (Weber) সাহেব, কোন মতে হিন্দুদিগের জ্যোতিষশাস্ত্রের প্রাচীনত উড়াইয়া দিতে না পারিয়া স্থির করিলেন, হিন্দুর চান্দ্র নক্ষত্রমণ্ডল বাবিলনীয়দিগের নিকট হইতে পাইয়াছে। বাবিলনীয়দিগের যে চান্দ্র নক্ষত্রমণ্ডল অীদেী কখনও ছিল না, তাহ চাপিয়া গেলেন। প্রমাণের অভাবেও Whitney সাহেব বলিলেন, তাহা হইতে পারে, কেন না হিন্দুদের মানসিক স্বভাব তেমন তেজস্বী নয় যে, তাহারা নিজবুদ্ধিতে এত করে। এই সকল মহাপুরুষগণের মতের সমালোচনায় আমার কোন প্রয়োজন ছিল না । কেন না, আমি স্বদেশীয় পাঠকের জন্য লিখি, হিন্দুদ্বেষীদিগের জন্য লিখি না। তবে দুঃখের বিষয় এই যে, আমার স্বদেশীয় শিক্ষিতসম্প্রদায় মধ্যে অনেকে তাহাদের মতের অম্বুৰী। অনেকেই নিজে কিছু বিচার আচার না করিয়াই, কেবল ইউরোপীয় পণ্ডিতদিগের মত বলিয়াই, সেই সকল মতের অনুবন্ত্রী। আমার ছুরাকাঙ্ক্ষা যে, শিক্ষিত্ত সম্প্রদায়ের মধ্যেও কেহ কেহ এই গ্রন্থ পাঠ করেন। তাই, আমি ইউরোপীয় মতেরও প্রক্তিবাদে প্রবৃত্ত। যাহাদের কাছে বিলাতী সবই ভাল, র্যাহার। ইস্তক বিলাতী পণ্ডিত, লাগায়েং বিলাতী কুকুর, সকলেরই সেবা করেন, দেশী গ্রন্থ পড়া দূরে থাক, দেশী ভিখারীকেও ভিক্ষা দেন না, তাহদের আমি কিছু করিতে পারিব না। কিন্তু শিক্ষিত সম্প্রদায়ের মধ্যে অনেকেই সত্যপ্রিয় এবং দেশবৎসল। তাহদের জন্য লিখিব । তৃতীয় পরিচ্ছেদ মহাভারতের ঐতিহাসিকতা বলিয়াছি যে, কৃষ্ণচরিত্র যে সকল গ্রন্থে পাওয় যায়, মহাভারত তাহার মধ্যে সৰ্ব্বপূৰ্ব্ববৰ্ত্তা। কিন্তু মহাভারতের উপর কি নির্ভর করা যায় ? মহাভারতের ঐতিহাসিকতা