পাতা:কৃষ্ণচরিত্র.djvu/২৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


* . . . . . . . इांीांक्षनबष : ; ; স্বর্ণ মরিলে, ছর্য্যোধন শল্যকে সেনাপতি করিলেন। পূৰ্ব্বদিনের যুদ্ধে যুধিষ্ঠির ক্ষত্রিয় হইয়া কাপুরুষতা-কলঙ্ক সংগ্ৰহ করিয়াছিলেন। এ কলম্ব অপনীত করা নিতান্ত । আবশ্বক। সৰ্ব্বদশী কৃষ্ণ আজিকার প্রধান যুদ্ধে ওঁহাকে নিযুক্ত করিলেন। তিনিও সাহস করিয়া শল্যের সহিত যুদ্ধ করিয়া তাহাকে বধ করিলেন। . . . . : * नई लिन नभंख्tर्कोहबtनछ भी७वश4 कईरू निश्छ इंश्ण । इहे छन जांच५, इं* e : অশ্বখাম, যত্নবাণীর কৃতবর্গ এবং স্বয়ং ঘুৰ্য্যোধন, এই চারি জন মাত্র জীবিত রছিলেন। ফুৰ্য্যোধন পলাইয়া গিয়া দ্বৈপায়ন হ্রদে ডুবিয়া রহিল। পাণ্ডবগণ খুজিয়া সেখানে তাহাকে ধরিল। কিন্তু বিনা যুদ্ধে তাহাকে মারিল না। যুধিষ্ঠিরের চিরকাল স্থূলবুদ্ধি, সেই স্থূলবুদ্ধির জন্তই পাগুবদিগের এত কষ্ট। তিনি এই সময়ে সেই অপূৰ্ব্ব বুদ্ধির বিকাশ করিলেন। তিনি ফুৰ্য্যোধনকে বললেন, “তুমি অভীষ্ট আয়ুধ গ্রহণপূর্বক আমাদের মধ্যে যে কোন বীরের সহিত সমাগত হইয়া যুদ্ধ কর। আমরা সকলে রণস্থলে অবস্থানপূর্বক যুদ্ধব্যাপার নিরীক্ষণ করিব। আমি কহিতেছি যে, তুমি আমাদের মধ্যে একজনকে বিনাশ করিতে পারিলেই সমুদায় রাজ্য তোমার হইবে।” দুৰ্য্যোধন বলিলেন, আমি গদাযুদ্ধ করিব। কৃষ্ণ জানিতেন, গদাযুদ্ধে ভীম ব্যতীত কোন পাগুবই ফুৰ্য্যোধনের সমকক্ষ নহে। ফুৰ্য্যোখ্রন অন্য কোন পাণ্ডবকে যুদ্ধে আহূত করিলে, পাণ্ডবদিগের আবার ভিক্ষাবৃত্তি অবলম্বন করিতে হইবে । কেহ কিছু বলিলেন না, সকলেই বলদৃপ্ত ; যুধিষ্ঠিরকে ভৎসনার ভার কৃষ্ণই গ্রহণ করিলেন। সেই কাৰ্য্য তিনি বিশিষ্ট প্রকারে নির্বাহ করিলেন । দুৰ্য্যোধনও অতিশয় বলদৃপ্ত, সেই দৰ্পে যুধিষ্ঠিরের বুদ্ধির দোষ সংশোধন হইল। ফুৰ্য্যোধন বলিলেন, যাহার ইচ্ছা হয়, আমার সঙ্গে গদাযুদ্ধে প্রবৃত্ত হও। সকলকেই বধ করিব। তখন ভীমই গদা লইয়া যুদ্ধে অগ্রসর হইলেন। " এখানে আবার মহাভারতের স্বর বদল। আঠার দিন যুদ্ধ হইয়াছে, ভীম ত্বৰ্য্যোধনেই সৰ্ব্বদাই যুদ্ধ হইয়াছে, গদাযুদ্ধও অনেকবার হইয়াছে, এবং বরাবরই হর্য্যোধনই গদাযুদ্ধে ভীমের নিকট পরাভব প্রাপ্ত হইয়াছে। কিন্তু আজ মুর উঠিল যে, ভীম গদাযুদ্ধে -