পাতা:কৃষ্ণচরিত্র.djvu/৩০৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


* দ্বারকার গিয়া কৃষ্ণ বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে মিলিত হইলে বস্তুদেব উহার নিকট যুদ্ধবৃত্তান্ত শুনিতে ইচ্ছা করিলেন। কৃষ্ণ যুদ্ধবৃত্তাপ্ত পিতাকে যাহ শুনাইলেন, তাহ সংক্ষিপ্ত অত্যুক্তিশূন্ত, এবং কোন প্রকার অনৈসর্গিক ঘটনার প্রসঙ্গদোষরহিত। অথচ সমস্ত স্থূল ঘটনা প্রকাশিত করিলেন। কেবল অভিমন্ত্র্যবধ গোপন করিলেন। কিন্তু সুভদ্রা তাহার সঙ্গে দ্বারকায় গিয়াছিলেন, সুভদ্ৰা অভিমমু্যবধের প্রসঙ্গ স্বয়ং উথাপন 'করিলেন। তখন কৃষ্ণ সে বৃত্তাস্তও সবিস্তারে বলিলেন । - এদিকে যুধিষ্ঠির, কৃষ্ণের বিদায়কালে তাহাকে অনুরোধ করিয়াছিলেন যে, অশ্বমেধ যজ্ঞকালে পুনৰ্ব্বার আসিতে হইবে। এক্ষণে সেই যজ্ঞের সময় উপস্থিত। অতএব তিনি যাদবগণ পরিবৃত হইয়া পুনর্বার হস্তিনায় গমন করিলেন। কৃষ্ণ তথায় আসিলে, অভিমন্ত্র্যপত্নী উত্তর একটি মৃতপুত্র প্রসব করিলেন। কৃষ্ণ তাহাকে পুনর্জীবিত করিলেন। কিন্তু ইহা হইতে এমন সিদ্ধান্ত করা যায় না যে, কৃষ্ণ ঐশী শক্তির প্রয়োগদ্বারা এই কাৰ্য্য সম্পাদন করিলেন। এখনকার অনেক ডাক্তারই মৃতসন্তান ভূমিষ্ঠ হইলে তাহাকে পুনৰ্জ্জীবিত করিতে পারেন ও করিয়া থাকেন এবং কিরূপে করিতে পারেন, তাহা আমরা অনেকেই জানি। ইহা দ্বারা কেবল ইহাই প্রমাণিত হইতেছে যে, যাহা তখনকার লোক আর কেহ জানিত না, কৃষ্ণ তাহ জানিতেন । তিনি আদর্শ মনুষ্য, এজন্ত সৰ্ব্বপ্রকার বিদ্যা ও জ্ঞান তাহার অধিকৃত হইয়াছিল। তার পর নির্বিবঙ্গে যজ্ঞ সম্পন্ন হইল। কৃষ্ণও দ্বারকায় পুনরাগমন করিলেন। তার পর আর পাণ্ডবগণের সঙ্গে তাহার সাক্ষাৎ হয় নাই ।