পাতা:কৃষ্ণচরিত্র.djvu/৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


৮২ ५५ কৃষ্ণচরিত্র * #, চুরি অবশু পাপ, তাহার উত্তর এই যে, মানবধর্মাবলম্বী শিশুর পাপ নাই, কেন না, শিশুর ধৰ্ম্মাধৰ্ম্ম জ্ঞান নাই। কিন্তু এ সকল বিচারে আমাদের কোন अराख्नहे नहे-८कन न, কথাটাই অমূলক। যদি মৌলিক কথা হয়, তবে ভাগবতকার, এ কথা যে ভাবে বলিয়াছেন, তাহা বড় মনোহর । ভাগবতকার বলিয়াছেন যে, ননী মাখন ভগবান নিজের জন্য বড় চুরি করিতেন না so বানরদিগকে খাওয়াইতেন। বানরদিগকে খাওয়াইতে না পাইলে শুইয়া পড়িয়া ఖళ ভাগবতকার বলিতে পারেন যে, কৃষ্ণ সৰ্ব্বভূতে সমদৰ্শী ; গোপীরা যথেষ্ট ক্ষীর নবনীত খায়,—বানরেরা পায় না, এজন্ত গোপীদিগের লইয়া বানরদিগকে দেন। তিনি সৰ্ব্বভূতের ঈশ্বর, গোপী ও বানর র্তাহার নিকট মনী মাখনের তুল্যাধিকারী। এই শিশু সৰ্ব্বজনের জন্ত সহৃদয়তাপরবশ, সৰ্ব্বজনের ছঃখমোচনে উষ্ঠ্যক্ত । তিৰ্য্যক্ৰজাতি বানরদিগের জন্য র্তাহার কাতরতার ভাগবতকার এই পরিচয় দিয়াছেন। আর একটি দুঃখিনী ফলবিক্রেত্রীর কথা বলিয়াছেন। কৃষ্ণের নিকট সে ফল লইয়া আসিলে কৃষ্ণ অঞ্জলি ভরিয়া তাহাকে রত্ন দিলেন। কথাগুলির ভাগবত ব্যতীত প্রমাণ কিছু নাই ; কিন্তু আমরা পরে দেখিব, পরহিতই কৃষ্ণের জীবনের ব্ৰত । ৭। যমলাৰ্জুনভঙ্গ। একদা কৃষ্ণ বড় “কুরম্ভপনা” করিয়াছিলেন বলিয়া, যশোদা তাহার পেটে দড়ি বাধিয়া, একটা উদুখলে বাধিয়া রাখিলেন। কৃষ্ণ উদুখল টানিয়া লইয়। চলিলেন। যমলার্জন নামে দুইটা গাছ ছিল। কৃষ্ণ তাহার মধ্য দিয়া চলিলেন। উদুখল, গাছের মূলে বাধিয়া গেল। কৃষ্ণ তথাপি চলিলেন। গাছ দুইটা ভাঙ্গিয়া গেল। এ কথা বিষ্ণুপুরাণে এবং মহাভারতের শিশুপালের তিরস্কারবাক্যে আছে। কিন্তু ব্যাপারটা কি ? অর্জুন বলে কুরচি গাছকে ; যমলাৰ্জ্জুন অর্থে জোড় কুরচি, গাছ। কুরচি গাছ সচরাচর বড় হয় না, এবং অনেক গাছ ছোট দেখা যায়। যদি চারাগাছ হয়, তাহা হইলে বলবান শিশুর বলে ঐরুপ অবস্থায় তাহ ভাঙ্গিয়া যাইতে পারে। কিন্তু ভাগবতকার পূর্বপ্রচলিত কথার উপর, অতিরঞ্জন চেষ্টা করিতে ক্রটি করেন নাই। গাছ ছুইটি কুবেরপুত্র ; শাপনিবন্ধন গাছ হুইয়াছিল, কৃষ্ণস্পর্শে মুক্ত হইয়া স্বধামে গমন করিল। কৃষ্ণকে বন্ধন করিবার কালে গোকুলে যত দড়ি ছিল, সব যোড় দিয়াও কচি ছেলের পেট বাধা গেল না। শেষে কৃষ্ণ দয়া করিয়া বাধা দিলেন। - বিষ্ণুর একটি নাম দামোদর। বহিরিন্দ্ৰিয়নিগ্রহকে দম বলে। উদ্‌ উপর, ঋ গমনে, এজন্য উদর অর্থে উৎকৃষ্ট গতি। দমের দ্বারা যিনি উচ্চস্থান পাইয়াছেন তিনিই