পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/১০২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কোরআন শরীফ [ প্রথম পারা ‘‘ہف ہوا এই বৃক্ষের একটা পূর্ণ লক্ষণের সন্ধান পাওয়া যায়। কোরআনে এইটুকু জানা যাইতেছে ধে, ঐ নিষিদ্ধ বৃক্ষের ফল ভক্ষণ করিলে আদম অত্যাচারীদিগের অন্তভূক্ত হইয়া বাইবে। BBBB BBBB BB BBBDS AAAAA AAAA AAAASABBBSB BBBB BDS আমরা নিজেরা নিজেদের উপর অত্যাচার করিয়াছি।” ফলতঃ যে বৃক্ষের ফলে মজিয়া মানুষ নিজে নিজের উপর অত্যাচার করিতে বাধ্য হয়, আদমকে সেই বৃক্ষের ত্রিসীমায় পদার্পণ করিতে নিষেধ করা হইয়াছিল। কার্য্যতঃ এই বৃক্ষকে উপলক্ষ করিয়াই শয়তান আদমকে পদম্বলিত করিয়া দিতে সমর্থ হইয়াছিল। ছুর জ্বাহা’য় দেখা যায়—আদমকে কুহকিত করার সময় শয়তান এই বৃক্ষকে ১JAJ ,৯৯ বিশেষণ দিতেছে। যে বৃক্ষ বা যে বৃক্ষের ফল মানুষকে অবিনশ্বর ও চিরস্থায়ী করিয়া রাখিতে পারে, শাজারাতুল খুলদ’ অর্থে তাহাই। একটা হাদিছে হজরতের প্রমুখাৎ বর্ণিত হইয়াছে—“অপরাধে লিপ্ত হওয়ার পূৰ্ব্বে মৃত্যু ছিল আদমের সম্মুখে, আর বাসন ছিল তাহার পশ্চাতে । কিন্তু অপরাধে লিপ্ত হওয়ার (অর্থাৎ নিষিদ্ধ বৃক্ষের ফল ভক্ষণের ) পর বাসনা আসিল তাহার সম্মুখে, আর মৃত্যু সরিয়া গেল তাহার পশ্চাতে ।” (মন্‌ছ্‌র ১–৫৮) । 'ছর এবরাহিমের ২৪শ হইতে ২৭শ আয়ত পৰ্য্যন্ত মনোযোগ দিয়া পাঠ করিলে এই বৃক্ষের একটা স্পষ্ট আভাব পাওয়া যাইবে । এখানে সততা ও অসততার কথাকে আল্লাহ তাআলা সুবৃক্ষ ও কুবৃক্ষ বলিয়া উপমিত করিয়াছেন। স্বরক্ষের মূল চিরস্থায়ী, তাহার শাখা গগনম্পর্শী, আর তাহার ফল সৰ্ব্বকালে চিরন্তন। পক্ষান্তরে কৃবৃক্ষ ধরা পৃষ্ঠের উপরিভাগ হইতে সমুৎপন্ন হইয়াছে—কোন স্থায়িত্ব তাহার নাই। কোআন ও হাদিছের এই সকল বর্ণনা দ্বারা স্পষ্ট জানা যাইতেছে যে, বৃক্ষ’ এখানে রূপকভাবে ব্যবহৃত হইয়াছে। যে ভাবে তন্ময় তদগত হইয়া মাঙ্গুষ এই নশ্বর জীবনের ক্ষণস্থায়িতার কথা, জীবন সাধনার সেই পরম সাধ্যের কথা বিস্তৃত হইয়া দুনার বাসন-মোহে ম্য হইয়া আত্মবিশ্বত হইবা পড়ে—তাহারই ত্রিসীমায় পদার্পণ করা আদমের পক্ষে নিষিদ্ধ ংগছিল বাইবেলের জ্ঞানবৃক্ষের সহিতও আয়তের কোন সংশ্ৰব নাই। বস্তুতঃ ইহার" "প্রত্নত তাৎপৰ্য্য জ্ঞানবৃক্ষ নহে—অজ্ঞানবৃক্ষ, মায়াবৃক্ষ। ৭ ৮ ৯ হবুত—চলিয়া যাওয়া — து শি হবুত' শব্দের অর্থ—নমিয়া যাওয়া, অপহৃত হওয়া, এক স্থান হইতে অন্ত স্থানে যাওয়া —সমস্তই হইতে পারে r আদমকে আছমান হইতে জমিনে ফেলিয়া দেওয়াহইয়াছিল— বলিয়। যে গল্পট সাধারণভাবে প্রচলিত আছে, তাহার একটা মূলস্থত্র এখানে নিহিত রহিয়াছে বলিয়া অীমাদের বিশ্বাস । কেবল প্রথম অর্থ গ্রহণ করিয়া—(নামিয়া যাও =উচ্চ স্থান হইতে ন্নি স্থামে শমন কর-আছমান হইতে জমিনে গমন ক ), ব্যাপারটা এইরূপ দাড়াইছে। ঞ্চেস্তুব" :ཨཱ་ག་ শেষোক্ত অর্থে আরবী সাহিত্যে যথেষ্ট ব্যবহার হইয়া থাকে। { কবি fএ মনীর. Lone ) । কোরআনে বনি এছরইলকে বলা হইয়াছে— ‘ கீழ்