পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/১০৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২য় চুরা, ৫ম রুকু ] ধৈর্য্য ও প্রার্থলা । పారి ৫৬ এছদীদিগের প্রথম দুষ্কৰ্ম্ম — এই আয়তে এহুদী-আলেমদিগের প্রথম দুষ্কর্মের কথা ব্যক্ত করা হইতেছে। যে বিষয়কে তাহারা নিজেদের জ্ঞানবিশ্বাস মতে সত্য বলিয়া বিশ্বাস করে—কোন স্বার্থের প্রলোভনে বা ক্ষতির আশঙ্কায় তাহাকে তাহারা ব্যক্ত করিতে পারে না। সে জন্য কখনও তাহারা সত্যকে মিথ্যার সহিত মিশ্রিত করিয়া দুই কূল রক্ষণর চেষ্টা করিয়া থাকে, অথবা আদৌ সত্যকে গোপন করিয়া ফেলে, জনসাধারণকে তাঙ্গ জানিতে দেয় না। ৫৭ দ্বিতীয় দুষ্কৰ্ম্ম — এহুদী পুরোহিতদিগের ধৰ্ম্মজীবনের দ্বিতীয় ব্যাধির কথা এই আয়ুতে বর্ণনা করা হইয়াছে। লোকদিগকে সাধু ও সৎকৰ্ম্মপরায়ণ হওয়ার উপদেশ দেওয়া, কাহা দ্বারা নিজের পৌরোহিত্যের প্রসার বাড়াইয়া লওয়া, আর নিজেরা আত্মসংশোধনে মনোনিবেশ না করা— ইঙ্গ অপেক্ষ গুরুতর অপরাধ আর কি হইতে পারে ? কোরআনে ইহাকে ৪০,১৫ অর্থাৎ—‘মহাপাতক বলিয়া উল্লেখ করা হইয়াছে । এহুদী আলেম ও পুরোহিত সমাজ সাধারণতঃ কপটতার এই মহাপাতকে লিপ্ত হইয়। নিজদিগকে অধঃপতিত করিয়া ফেলিয়াছিল । –: s ettefat 847ة الصبر و الصلوة ياه ধৈর্য্য ও প্রার্থনার দ্বারা শক্তি সঞ্চয় কর’—ইঙ্গর দুইটা স্তর অাছে । কোন বিপদ উপস্থিত হইলে মানুষ যথাযথ ভাবে নমাজে প্রবৃত্ত হইবে, বিপদ হইতে রক্ষা পাইবার জন্য একমাত্র বিপদবারণ আল্লার শরণ গ্রহণ করিবে, প্রাণের সমস্ত খলছ’ ও একাগ্রতা সহকারে র্তাহার নিকট 'ফব্রুয়াদ করিতে থাকিবে । এই নমাজ ও প্রার্থনার ফলে,তাহার প্রাণে শক্তি সঞ্চয় হইতে পারবে। তিমিজ প্রভৃতি গ্রন্থে এই মর্শের একটা গদিছও বিদ্যমান আছে । শাহ আবদুল আজিজ ছাহেব বলিতেছেন যে, ইহা দ্বিতীয় শ্রেণীর সাধনা এবং সাধারণ স্তরের সাধকদিগের জন্য এ ব্যবস্থা। ইগর উত্তম স্তর এই যে, বিপদ আপদে নিমজ্জিত হইয়া সাধক যখন নমাজে মনোনিবেশ করে—বিপদ হইতে রক্ষা পাওয়ার ব্যাকলি” ঠখনু আর তাহার থাকে না। নমাজে মনোনিবেশ করার ফলে বিপদের অন্তভূতি পৰ্য্যন্তও তাহার অন্তঃকরণ হইতে লুপ্ত হইয়া যায় । শাহ ছাহেব আরও বলিতেছেন—রোগী, অঙ্গে গুরুতর অক্টোপচার ক্টরার পূৰ্ব্বে বা পরে তাহাকে যেমন কতকটা মাদক দ্রব্য খাওয়াইয়া দেওয়া হয় এবং গহীতে যেমন রোগী উপচারের জ্বালা যন্ত্রণ। কিছুই অনুভব করিতে পারেন-সেইরূপ নমাজের যোগ-সাধনার মধ্য দিয়া অাল্লার প্রেম-মদিরার এমন একটা বান সাধকের মনঃপ্রাণকে আপ্লুত ও অভিভূত করিয়া ফেলে যে? বিপদ আপদের অস্তিত্বের ভূতি পৰ্য্যন্ত সে বিস্তুত হইয়া বসে / ( আজিজী ) । ইহার চরম আদর্শ দেখিতে পাওয়া যায় মহানবী, মোঙ্কফার পুন্য জীবনে ।