পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/১৬৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২য় ছুরা, ৯ম রুকু ] বিশিষ্ট বত্তিকে হত্যার চেষ্টা ૩૧ ヘへヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘヘン SMSMeEAAA AAAS S ASASASA AAA A S A S A S A S A SeSe eAA AeM S AAAAA AAAA AAAA AA LS ' * శా " - a^ - - -్న " তাহাকে বন হইতে গরুট ফিরাইয়া আনিতে বলেন । এই গরু বাড়ী আনিয়া বাজারে বিক্র করিতে গেলে, কোন মহাপুরুষ বা ফেরেশতা যুবককে গরু বিক্রয় করিতে নিষেধ করিয়া বলিয়া দেন–“ইস্রাইলীয়গণের ইহার আবশ্বক হইবে, সেই সময় যেন উহার সম ওজন স্বর্ণমুদ্রা লইয়া বিক্রয় করে।” তাহার পর হত্যাকাণ্ড এবং চল্লিশ বৎসর পর্য্যন্ত গরুর সন্ধান ইত্যাদি । কাজেই যে সময় এহুদীরা ঐ গরুটী জবাই করিয়াছিল, তখন তাহার বয়স পঞ্চাশ বৎসরের কম কোন মতেই হইতে পারে না। এ দিকে কোরআনের বর্ণন দ্বারা সপ্রমাণ হইতেছে যে, কোর্বানীর গরুট বৃদ্ধও নয়, বাছুরও নহে—এ দুয়ের মাঝামাঝি মধ্যবয়স্ক ছিল ( ৬৮ আয়ত ) ৷ পঞ্চাশ বৎসরের গরুকে জওয়ান বা মধ্য বয়স্ক কোন মতেই বলা যাইতে পারে না। সুতরাং ইহা হইতে গল্পটার অসারতা প্রতিপন্ন হইয়া যাইতেছে। " (চ) ব্যক্তি বিশেষের দ্বারা ব্যক্তি বিশেষের গুপ্তহত্যা প্রত্যেক দেশে, প্রত্যেক যুগে প্রত্যেক জাতির মধ্যে সচরাচরই সংঘটিত হইয়া থাকে। আলোচ্য আয়ুতের এই হত্যা ব্যাপারটা ইতিহাসের কোন একটা গুরুতর ঘটনা না হইলে কোআনে বিশেষ করিয়া তাহার উল্লেখ হইত না। পক্ষান্তরে আয়তে হত্যকারী:দিগকে বরাবরই বহুবচনাত্মক পদ দ্বারা বিশেষিত করা হইতেছে। অধিকন্তু আমরা ইহাও দেখিতেছি যে, এই হত্যার ব্যাপার লইয়া জাতির হিসাবে এহুদী সম্প্রদায়কে ভৎসনা করা হইতেছে। সুতরাং জাতির হিসাৰে তাহারা যে ব্যাপারে লিপ্ত ছিল না, এবং জাতির হিসাবে যে অভিসন্ধিকে গোপন করার চেষ্টা তাহার করে নাই, তাহ লইয়া একটা গোটা সমাজকে তিরস্কার করা কখনও সঙ্গত হইতে পারে না। বিশেষতঃ গল্প-রচয়িতারা যখন নিজ মুখে স্বীকার করিতেছেন যে, বনি-এছরাইল সাধারণ ভাবে অপরাধীকে ধরিবার জন্য বিশেষ আগ্রহ প্রকাশ করিয়াছিল, তখন আয়ুতের সঙ্গে গল্পটার খাপ খাওয়ান কোন মতেই সম্ভবপর হইতে পারে না । (ছ) গল্পটাকে আয়তের সঙ্গে খাপ খাওয়াবার জন্য তফছিরকারগণকে ব্যাকরণ ও অলঙ্কার সম্বন্ধেও অনেক অসঙ্গত কষ্ট কল্পনার আশ্রয় লইতে হইয়াছে, যথা—(১) উন্থ স্বীকার— _s are ৮a —তখন তাহারা মৃত ব্যক্তিকে গোমাংস মেলিয়া মারিল ফলে সে জীবিত হইয়া উঠিল—এতটা অংশ উহ ন মানিলে চলিতে পারে না। (২) কষ্ট কল্পনা— ১৮১৫ ক্রিয়াপদের কৰ্ম্ম হইতেছে . জমির বা সৰ্ব্বনাম। তাহীকে—অর্ধে কাহাকে, কাহাকে ‘মাংস দিয়া মারিতে বলা হইতেছে ? ইহার উত্তরে বলা হইতেছে যে, ঐ সৰ্ব্বনামের বিশেষ হইতেছে কতিল' বা নিহত ব্যক্তি। কিন্তু কতিলের নাম গন্ধও ত আয়ুতে নাই । তাই তাহারা বলিতেছেন—‘হত্যা করিলে’-ক্রিয়াপদের মধ্যে মিছদর’ হইতেছে কতল—‘কতল বা হত্যা হইলে একজন কতিল' বা নিহতের ভাবও মনে জাগিয়া উঠে । এই হিসাবে সৰ্ব্বনামের সৎকার সম্পন্ন করা হইয়াছে। (৩) ব্যাকরণের প্রতি অত্যাচার—৭২ আয়তে সেই নিহত ব্যক্তি সম্বন্ধে waj শুদ ব্যবহার করা হইয়াছে। এখানে