পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/১৮৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ধু চুরা, ১০ম রুকু ] পাখিৰ জীবনের লাঞ্ছল। SSలు ও দেশবাসীর সর্বনাশ করার জন্য দেশের সাধারণ শত্রুদিগের যথা সাধ্য সহায়তা করিয়াছিল। মোস্তফা-চরিতে'র ৫৭ অধ্যায়ে এহুদীদিগের এই সব অপকর্মের বিস্তারিত আলোচনা, কর হইয়াছে । আয়তে এহুদীদিগের এই প্রতিজ্ঞা ভঙ্গের কথা উল্লেখ করা হইয়াছে। ৮৫ কেতাবকে আংশিক ভাবে মান্ত করা — মদিনার আনছারগণ আওছ ও খঞ্জরজ নামক দুই গোত্রে বিভক্ত ছিলেন । মদিনা BBBB BBB BBB BSBB BBB BBSBBBBBS BSB BBBB BB BB BBB আবদ্ধ ছিল, বনি-কল্পনকা ও নজির গোত্র খজরজের পক্ষে ছিল । এছলামের পূৰ্ব্বে আওছ ও খজরজ গোত্রের মধ্যে ভয়ঙ্কর শক্রতার ভাব চলিস্থা আসিতেছিল, এবং এজষ্ঠ উভয় গোত্রের মধ্যে প্রায়ই যুদ্ধ বিগ্রহ সংঘটিত হইত। এই সময় এহুদীরাও আপন আপন মিত্র গোত্রের সঙ্গে যোগদান করিয়া এই শোচনীয়তার চিএকে শোচনীয়তর করিয়া তুলিত । পক্ষান্তরে স্বাভাবিক নীচ স্বার্থপরতা ও হিংস। বিদ্বেষের ফলেও এহুদীদিগের মধ্যে প্রায়ই গৃহ বিবাদ ও যুদ্ধ বিগ্ৰহ লাগিয়া থাকিত । এই সমস্ত সময় তাহারা স্বজনগণকে নিহত করিতে, দুৰ্ব্বল স্বজাতীয়দিগকে তাহদের জন্মভূমি হইতে বিতাড়িত করিতে এবং এই স্বজাতিদ্রোহিতার নাচ প্রবৃত্তিকে চরিতার্থ করার জন্য বিজাতীয় ও বিধৰ্ম্মীদিগকে পাপ ও । অত্যাচার ভাবে সহায়তা করিতে এক বিন্দুও কুন্তিত হইত না । কিন্তু তাহীদের সাহায্য ও সাহচর্য্যের ফলে, এহুদীগণ যখন যুদ্ধ ক্ষেত্রে অন্তের হাতে বন্দী হইয়া যাইত, তখন তাহাদের ধৰ্ম্মজ্ঞান ও জাতীয়তার ভাব প্রবল হইয়া উঠিত এবং তাহারা মুক্তিপণ দিয়া ঐ বন্দীদিগকে ছাড়াইয়া লইত । তখন তাহারা বলিত—শাস্ত্রের বিধান অনুসারে বন্দী এহুদী দিগকে মুক্তিপণ দিয়া খালাস করিয়া লওয়া আমাদের কৰ্ত্তব্য । এ৮দীদিগের এই উৎকট শাস্ত্র জ্ঞানের অসারত প্রতিপাদন করিয়া এখানে বলা হইতেছে যে, স্বজাতীয়দিগকে তাহাদিগের আবাস ভূমি হইতে বিতাড়িত করার জন্য পরজীটির সাহায্য করাই ৩ প্রথম ও প্রধান মহাপাতক, শাস্ত্রে ত ইহার ভূধঃ চুম্বঃ নিষেধ বিদ্যমান আছে । তোমাদিগের আত্মকলহ, আক্রমণ ও অত্যাচার ফলেই তাহারা বন্দী হইয়া থাকে । সে সময় শাস্ত্রের নিষেধকে পদদলিত করিতে তোমাদের একটুও দ্বিধা হয় না কেন ? তাহা হইলে তাঁহাদের এইরূপ বন্দী হইয়া আসার সুযোগ ত ঘটে না ! তোমরা কি তবে শাস্ত্রের এক অংশকে । স্বীকার ও অন্য অংশকে অস্বীকার করিয়া থাক ! ৮৬ পার্থিব জীবনের লাঞ্ছন – উপরের আয়তগুলিতে এহুদীদিগের যে চরিত্র এবং তাহাদিগের যে মানসিকতার কথা বর্ণিত হইয়াছে, সেই চরিত্র ও সেই মানসিকতা যে জাতি অর্জন করিবে—“পার্থিব জীবনের চরম লাঞ্ছনাই তাহাদিগের একমাত্র ও অপরিহার্য্য কৰ্ম্মফল ।” আয়তের সর্ল প্রথম দ্রষ্টব্য এই যে, পার্থিব জীবনের লাঞ্ছনা আল্লার ‘ন্যাম ত’ বলিধা গ্রহণ করার छांद्र অজ্ঞ ১। আর কিছুই 。ミ> 酯 疊 இ )