পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/২২০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


কোরআন শরীফ [ প্রথম পারা . ويذد আয়তে প্রত্যক্ষতঃ হজরতকে সম্বোধন করিয়া এই কথাগুলি বলা হইয়াছে কিন্তু বস্তুত মুছলমানগণই উহার লক্ষ্যস্থল। বর্ণনার এই ধারা কোরআনে বহুলভাবে ব্যবহৃত হইয়াছে। “পিতা মাতার সম্মুখে বিনয় সহকারে তুমি নিজকে অবনত করিয়া দিবে”—এই আস্থত প্রকাশ হওয়ার বহুদিন পূৰ্ব্বে হজরতের পিতামাতা পরলোক গমন করিয়াছিলেন। সুতরাং এই আয়তে “তুমি” বলিয়। প্রত্যক্ষতঃ হজরতকে সম্বোধন করা হইলেও, বস্তুতঃ তিনি তাহার লক্ষীভূত হইতে পারেন না। প্রকৃতপক্ষে ইহাম্বারা হজরতের মধ্যবৰ্ত্তিতায় তাহার উম্মতকেই সম্বোধন করা হইয়াছে । আলোচ্য আয়ুতেও এই ধারার অনুসরণ করিয়া মুছলমান সমাজ কেই সম্বোধন করা হইতেছে। ১১১ যাহাদিগকে কেতাব দিয়াছি ঃ– ১৫৯ টীকায় এই আয়তের তাৎপর্য্যই বর্ণনা করা হইয়াছে। ষে সকল মুছলমান আল্লার কেতাব ( কোআন মজিদ ) প্রাপ্ত হইয়াছে এবং যাহারা যথাযথ মনোনিবেশ সহকারে তাহার তেলাঅৎ করে—যথোচিত ভাবে তাহার শিক্ষার অনুসরণ করিয়া থাকে, কোআনের সত্যতায় বিশ্বাস করার জন্য কোন অভিনব আজগৈবী নিদর্শনের আবশ্যক তাহদের হয় না, এই কথাই এখানে স্পষ্ট করিয়া বলিয়া দেওয়া হইতেছে। a y G~ syue পদের অর্থ– ( ১ ) বাহারা যথাযথ ভাবে তাহার তেলাঅৎ ( পাঠ ) করিয়া থাকে, এবং (২) যাহারা যথাযথভাবে তাহার অনুসরণ করিয়া থাকে—উভয়ই হইতে পারে । কাৰ্য্যতঃ উভয় অর্থের ভাব ও লক্ষ্য এক । “আমরা কোআনের-বাহক”—এই বলিয়া দম্ভ করার কোনই সার্থকতা নাই। কোর্আন হইতে উপকার লাভ করার জন্য প্রথম দরকার—গভীর অনুরাগ ও মুক্ত সত্যামুসন্ধিৎসা লইয়া ধীরভাবে শব্দের আবৃত্তির সঙ্গে সঙ্গে তাহার অন্তনিহিত ভাবকে হৃদয়ঙ্গম করিয়া যাওয়ার। মৰ্ম্ম না বুঝি কেবল শব্দগুলির আবৃত্তি করাতে—ছওয়াব যতই হউক না কেন— কোআনের শিক্ষাকে গ্রহণ করার কোনই সুযোগ ঘটে না । মুছলমান সমাজের মধ্যে আবৃত্তির দ্বারা ছওয়াব অর্জন করার আকাঙ্খা যতটা বিদ্যমান, অর্থ বুঝিয়া কোরআনের ভাবে অভিভূত হওয়ার আগ্রহ তাহার শতাংশের এক অংশও দেখিতে পাওয়া যাধু না । আয়ুতে ১৮৫৭ -এই ব্যাপক শব্দ ব্যবহার দ্বারা ইহাও বলিয়া দেওয়া হইতেছে যে, বে-আমল আলেমগণও, অর্থজ্ঞান থাকা সত্ত্বেও, কোরআনের দ্বারা কোন উপকার লাভ করিতে পারে না। কোর্তানের তাৎপৰ্য্য জ্ঞাত হওয়ার সার্থকতাই হইতেছে তাহার শিক্ষার অনুসরণ করাতে। পাঠক দেখিতেছেন—এখানে একই ব্যাপক শব্দের ব্যবহারে, উভয় জ্ঞান ও কৰ্ম্মযোগের কথা এক সঙ্গে কেমন সুন্দরভাবে বলিয়া দেওয়া হইতেছে। অর্থবোধ ব্যতীত_জান_অসম্ভব,_জান_ব্যতীত কৰ্ম্ম অসম্পূর্ণ এবং কৰ্ম্ম ব্যতীত জ্ঞান ব্যর্থ–বরং कक्ह ' হট তেছে মামুষের জ্ঞানের সত্যকার পরিচায়ক । অর্থবোধের দ্বারা এই যে জ্ঞানের অভ্যদয়,