পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/২৬৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


য়ু ছুরা, ১৯শ রুকু ] ধৈৰ্য্যশীলতার পুরস্কার ' શ્રવ ছে। বস্তুতঃ আল্লাহ যেখানে লক্ষ্য ও উপলক্ষ্য, বান্দা' সেখানে সাধকের কৰ্ম্মপথকে কখনই অধিকার করিয়া বসিতে পারে না । 彎 疊 آریا کسی که تر بخاراست جاری را چه کند فرزند رعایال را خانماری را چه کند ؟ دیوانه کنی، رهر در جهانشی بخشی دیوانهٔ توهرداز جه-ساری را چه کفساد ؟ ১৪৬ ইন্না-লিল্লাহে বল। — কোন বিপদ অাপদ উপস্থিত হইলে ছাবের বান্দাগণ, ইন্না লিল্লাহে অ-ইন্না এলায়হে রাজেউন বলিবে—আয়ুতে এই উপদেশ দেওয়া হইয়াছে । ইহার গুণ ও মহিমা বহু ছহি হাদিছে বর্ণিত হইয়াছে। হজরত রচুলে করিম ইহাও বলিয়াছেন যে, ইহার সমান মূল্যবান বিষয় ইতিপূৰ্ব্বে অন্য কোন উন্মতকে দেওয়া হয় নাই (ফংহুল বয়ান ১—২০৬ ) । বিপদ আপদের সময় মুছলমানের সাধারণতঃ এই ইন্না-লিল্লাহে পদটার আবৃত্তি করিয়া থাকেন। কিন্তু অশেষ পরিতাপের কথা এই যে, অন্যান্য বহু বিষয়ের ন্যায়, ইহার মূল শিক্ষা ও প্রকৃত উদ্দেশ্বের প্রতি মনোযোগ দেওয়া অধিকাংশ ক্ষেত্রেই আবশ্বক বলিয়া মনে করা হয় না। তাই এই অপূৰ্ব্ব অনুপম স্তামংটা ব্যর্থ হইয়া ধাইতেছে। Q এখানে লিল্লাহে শব্দের প্রথমে যে লাম বর্ণ আছে, আরবীতে তাহাকে লামে-তালিক বলা হয়, উহা অধিকার ও স্বামিত্ব অর্থব্যঞ্জক। অতএব “ইন্না-লিল্লাহে—” পদের প্রকৃত তাৎপর্য্য ঃ—আমাদের সকলের অধিকারী ও মালেক একমাত্র আল্লাহ । সুতরাং মালেকের ইচ্ছায় কাজ হইবে, দাসের ইচ্ছার কোন স্থান সেখানে নাই। আমাদের সকলের এবং অামাদের যথাসৰ্ব্বস্বের একমাত্র মালেক যে মঙ্গলময় জ্ঞানময় আল্লাহ, তাহার মঙ্গল ইচ্ছায় সানন্দচিত্তে আত্মসমর্পণ করাই আমাদের কৰ্ত্তব্য । শেষভাগে বলা হইতেছে —‘অ ইন্না এলায়হে রাজেউন, অর্থাৎ আমরাও ত তঁহারই পানে ফিরিয়া যাইব । অর্থাৎ যে মৃত বা নিহত বান্দার জন্য আমরা দুঃখে খ্রিয়মান ও শোকে অধীর হইয়া পড়িতেছি, সে ত সেই করুণাসিন্ধুর কাছেই গিয়াছে—সমস্ত স্থষ্টি যার কুদূরত ও করুণার একটা সামান্ত বিন্দুমাত্র। অতএব তাহার জন্ত ম্ৰিয়মান হওয়ার বা শোক করার কোনই কারণ নাই। অধিকন্তু তাহার সহিত আমাদের এ বিচ্ছেদ ত চিরবিচ্ছেদ নহে। জীবন যবনিক ভেদ করার সঙ্গে সঙ্গে আমরাও ত তাহারই পানে ফিরিয়া যাইব । “ফিরিয়া যাইব”—অর্থাৎ মূলে আমরা আসিয়াছি সেখান হইতে, তাহাই আমাদের আদি নিবাস-শাস্তিনিবাস। সেখানে যে ফিরিয়া যায়, তাহার জন্য অধীর হইয়া কৰ্ত্তব্য বিস্তুত হওয়া জ্ঞানী মানুষের পক্ষে উচিত নহে। ১৪৭ ধৈৰ্য্যলীলতার পুরষ্কার – o ১৫৩ হইতে ১৫৬ আয়ত পৰ্য্যন্ত ছবর বা ধৈর্য্যশীলতার যে পরীক্ষার বিষয় বলা হইয়াছে এই আস্থতে তাহার পুরস্কারের কথা বর্ণনা করা হইতেছে। আল্লার অনন্ত করুণ ও অনন্ত, י