পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/২৭৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ാ কোরআন শরীফ [ দ্বিতীয় পার। AAAAA AAAA AAAAeeeeAMA AeAe AeSeSee SS جي كتسمية - حتي S AAAAAA AAAA AAAA AAAA AAAA AAAA AAAA AAAASS SAA AAAAS AAAAA AAAAeeeeS S S J “سیپی = = * سمیہ۔ جاپہ میجہ جیے گئے ۔ হইতেছে শের্কের স্থ্যবীজ, এবং দৈহিক শের্ক অপেক্ষ এই মানসিক শের্কটা অত্যন্ত গুরুতর, অতিশয় ব্যাপক ও মারাত্মক । ነ যে কোন ব্যক্তি, বস্তু বা ভাব এইরূপে বান্দাকে তাহার মালেক হইতে দূরে সরাইয়া দেয়, তাহাই হইতেছে তাহার নেদ’ ( নে ন—২৭ টাকা)। এই ভাবে ঠাকুর বিগ্ৰহ, মানুষের প্রবৃত্তি ও বাসনা যেমন নেদ-পদবাচ্য—সেইরূপ অন্ধ অন্তকরণকারীর পক্ষে তাহার মিথ্যা পীরপুরোহিত ও নায়ক নেদ’ হইয়া বসে। ঠিক এইরূপ প্রসঙ্গে আহজাব চুরায় বলা হইতেছে — o و قالوا ربنا أنا أطعنا سادتنا و كلارئنا فاضلونيا السجيلا - —“আর (দণ্ডকে প্রত্যক্ষ করিয়) তাহারা বলিবে—হে আমাদের প্রভু! অমরা আমাদিগের নায়কগণের ও প্রধানদিগের অনুসরণ করিয়াছিলাম, ফলে তাহারাই আমাদিগকে পথভ্রষ্ট করিয়া দিয়াছিল ( ৬-৭ আয়ুত )। অষ্ঠত্র বলা হইয়াছে ঃ– اتخذرا إحدارهم ر رهبانهم ارباباً من دزن الله - —“আল্লাহকে ছাড়িয়া, নিজেদের আলেম ও ফকিরদিগকেই তাহারা প্রভু বানাইয়া লইয়াছে” ( ছুরা তাওবা ৩১ ) । উপসংহারের সহিত মিলাইয়া পড়িলে জানা যায় যে, এখানে এই নায়ক, প্রধান, পণ্ডিত ও ফকিররূপী মানুষ-নেদদিগের কথাই বলা হইতেছে। ব্যাকরণ ও অন্যান্য যুক্তির হিসাবেও ইহাই সঙ্গত অভিমত (কবির ২—১০৫ ) । মুছলমানের সাধনাকে এই নরপুজার কলুষ হইতে সম্পূর্ণভাবে পাকছাফ করিয়া দেওয়াই কোরূকানের সব শিক্ষার অন্যতম লক্ষ্য । কিন্তু অশেষ পরিতাপের বিষয় এই যে, এই শিক্ষা হইতে মুছলমান সমাজ সাধারণতঃ আজ বহু দূরে সরিয়া পড়িয়াছে। আজ মুছলমানসমাজের নিকট আল্লার কোরআনকে বার্তাহার রছুলের হাদিছকে পেশ করিয়া পার পাওয়ার কোন উপায় নাই। কোম্মান বা হাদিছের সেই আদেশ নিষেধ তাহদের দলস্থ এমাম আলেম ও পীর ফকিরদিগের সমর্থন না পাইয়া থাকিলে, সে কখনই তাহা স্বীকার করিতে প্রস্তুত হইবে না। ১৫৫ অন্ধভক্তের দুরবস্থা – ' এই অন্ধ অনুকরণের স্থত্রপাত করা হয়, সাধারণতঃ যে সব মহাজনদিগের নাম করিয়া, র্তাহার। কিন্তু মানুষকে চিরকালই নিজের বা অপর কোন ব্যক্তির অন্ধ অনুকরণ হইতে নিষেধ করিয়াই আলিয়াছেন। তাই মহা বিগরের সময় তাহারা আল্লার হুজুরে নিবেদন করিবেন যে, এই হতভাগাগুলির কৃতকার্য্যের সহিত আমাদের কোন সম্বন্ধ সংশ্ৰব কস্মিনকালেও ছিল না (২৫—১৮, ১৯ )। এইরূপে হজরত ইছ উত্তর করিবেন —তুমি আমাকে যেরূপ আদেশ করিয়াছিলে, তাহার অতীত অন্য কোন কথা আমি উহাদিগকে বলি নাই