পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/৩২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


OO . . to as কোরআন শরীফ(عيN ' - .. ഹ. . ...... ~ == A S A S A S A STS ے۔ یہr سے -- - r“ ي “ايي % مي عیسی گیرr জহাদ পরিত্যাগ করিলেই মুছলমান ধ্বংস হইয়া ৰাইবে । কোরআনকে অমান্ত করার প্রতিফল আজ দুনাজোড়া ধ্বংসলীলারূপে মুছলমানের সম্মুখে প্রকট হইয়। উঠিয়াছে। এই আয়তটা যে জেহাদ সম্বন্ধেই নাজেল হইয়াছে, আবুআইউব আনছারী কর্তৃক বর্ণিত এক হাদিছে তাহা স্পষ্টভাবে বর্ণিত হইয়াছে ( আবুদাউদ, তিরমিজি, হাকেম প্রভৃতি ) ৷ [ দ্বিতীয় পারা ১৮৪ হজ ও ওমরা ঃ– হঞ্জের মাস ও দিন নিৰ্দ্ধারিত আছে, হজের জন্য মেনা ও আরাফাতে উপস্থিত হওয়া একান্ত অবশ্যক । ওমরার কোন সময় নিৰ্দ্ধারিত নাই, এবং সেজন্য মেনা ও আরাফাতে উপস্থিত হওয়ার ও দরকার করে না । হজের ও ওমরার সময় কতকগুলি নিয়ম পালন করিতে হয় –এহরামের লেবাছ পরিতে হয়, ক্ষৌরকার্য্য বন্ধ রাখিতে হয়। এই সময় সকল প্রকার লড়াই ঝগড়া, অশ্লীলতা ও নারীচচ্চা হইতে বারিত থাকা হাজীর পক্ষে একান্ত কৰ্ত্তব্য। ইহার ক্রটা হইলে দণ্ডস্বরূপ কাফফার দিতে হয়। হজের সমস্ত অনুষ্ঠান সমাপ্ত হওয়ার পর, যথাবিধি কোর্বানী দিয়া ব্রতভঙ্গ করিতে হয়। কিন্তু শত্রুপক্ষ যদি ইহতে বাধা দেয়, তাহা হইলে সমস্ত অহুষ্ঠান শেষ করিয়া কোর্বানী করা অসম্ভব, কাজেই এ অবস্থায় অগত্যা সহজলভ্য কোন একটা পশু কোর্বানী করিয়া বতভঙ্গ করা চলিবে । হোদায়বিয়ার তীর্থযাত্রার সময় মক্কার মোশ রেকগণ হজরতকে ও মুছলমানদিগকে এই ভাবে বাধা দিয়াছিল, এই রুকু’র আয়তগুলি সেই সব ঘটনা উপলক্ষে নাজেল হইয়াছে। কেহ যদি পীড়িত হুইয়া পড়ে, অথবা উকুন প্রভৃতির জন্য যদি চুল রাখা তাহার পক্ষে কষ্টকর হইয়া দাড়ায় সে অবস্থায় সময়ের পূর্বে মাথা মুড়াইবার অনুমতি তাহার আছে। তবে এজন্য তাহাকে ফিদা দিতে হইবে । তিন দিন রোজা রাখিলে কিম্বা ছয়ুজন কাঙ্গালকে অন্নদান করিলে, অথবা কোন একটা কোর্বানী দিলে এই ফিদয়া আদায় হইয়া যাইতে পারে । w হজ তিন প্রকার – এফরাদ, কেরান ও তামাত্তো'। শাউওয়াল, জিল কাদ ও জিল হাজকে হজের মওছম বা নিৰ্দ্ধারিত সময় বলা হয়। মীকণত হইতে কেবল হজের নিযুত করিয়া এহরাম বাধিলে তাহাকে এফরাদ বলা হয়। এ অবস্থায় মক্কা শরিফে গিয়া সমস্ত কার্জের পূর্বে তাওয়াফ ও ছাফা মারওয়া দৌড়ান শেষ করিতে হয়। এফরাদের নিয়ত করিয়া এহরাম বাধিলে হজ শেষ না হওয়া পৰ্য্যন্ত পূর্বের ন্যায় এহরামের অবস্থায় থাকিতে ও এহরামের সমস্ত নিষেধ পালন করিতে হয়। কেরানের জন্য মীকাত হইতে একসঙ্গে হজ ও ওমরার নিয়ত করিয়া এহরাম বাধিতে হয়। এ অবস্থায় মক্কায় পৌঁছিয়া ওমর শেষ করিয়া, হজ শেষ না হওয়া পৰ্য্যন্ত, এহরামের অবস্থায় থাকিতে ও সমস্ত নিষেধ পালন করিতে