পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/৩৫২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


రిలత কোরআন শরীফ [ দ্বিতীয় পারা SAe eeee eeeAMAMAe EEAAA AAAA AAAA AAAA AA ASASASAeeAMMe Aee AAAA AAAA SAAAAA SAeeSeeeAeAeA AeAAA AAAAA چ می به سم عیخیم عیسی می باعیه حبی হইতেছে আল্লার নিৰ্দ্ধারিত এই জেহাদ। তাই এই জেহাদ সম্বন্ধে চূরা আনফালে বলা হুইতেছে — o يأ أيها الذين آمئر|| أستجيبوا لله ر لالرسول أن دعا كم لما يعييـكم —“হে মোমেনগণ! আল্লাহ ও রচুল যখন সেই সাধনার পানে আহ্বান করেন যাহা তোমাদিগকে জীবন্ত করিয়া রাখিবে-তখন তোমরা সেই আহবানে সাড়া দিও !” কিন্তু মুছলমান আমরা আল্লাহ ও রচুলের সেই আহ্বানকে উপেক্ষা করিয়া আজ অন্যত্র জীবনের সন্ধান করিয়া বেড়াইতেছি । ২৯ সমস্ত সাধনাই ব্যর্থ হইয়া যাইবে – মুছলমানকে এছলাম হইতে বিমুখ করার জন্য কাফেরগণ চিরকালই তাহার বিরুদ্ধে সংগ্রাম চালাইতে থাকিবে এবং মুছলমান স্বধৰ্ম্মচু্যত না হওয়া পর্যন্ত তাহদের এ সংগ্রামের নিবৃত্তি হইবে না, পূৰ্ব্ব আয়তে এ কথা স্পষ্ট করিয়া বলিয়া দেওয়া হইয়াছে। যে ক্ষেত্রে কাফেরদিগের এই সংগ্রামের উদ্দেশ্য সফল হইয়া যাইবে, মুছলমানকে যেখানে তাহারা স্বধৰ্ম্ম হইতে বিমুখ করিয়া ফেলিতে সমর্থ হইবে, মুছলমানের পরকালের সহিত তাহার ইহকালের সমস্ত সাধনাও সেখানে ব্যর্থ হইয়া যাইবে। পরাজিত পরাধীন দেশের মুছলমান ধৰ্ম্মবিমুখ হইয়া পড়িবে এবং তাহার জাতীয় জীবনের সব সাধনাই বিফল হইয়া যাইবে, আয়তে এই সত্যের প্রতি ইঙ্গিত করা হইতেছে। ২১০ হেজরত ও জেহাদ ঃ– কাফেরদিগের সংগ্রামের উদেশ্বকে ব্যর্থ করিয়া দিবার উপায়—হেজরত ও জেহাদ । জেহাদের আয়োজনের জন্যই অনেক সময় হেজরতের আবশ্বক হইয়া থাকে। মুছলমানের রক্ষামন্ত্র হইতেছে ঈমান, আর তাহীর সঙ্গে সঙ্গে’হেজরত ও জেহাদ । বিশ্বাস ও কর্মের এই মহীয়সী সাধনাকে অবলম্বন করে যাহারা, আল্লার কৃপালাভের আশা করার অধিকার একমাত্র তাহদের আছে। অর্থাৎ যাহারা মুখে মুছলমান বলিয়া অহমিকতা প্রকাশ করে, কিন্তু আল্লার পথে জেহাদ করার সাহস ও শক্তি সামর্থ্য যাহাঁদের নাই, আল্লার কৃপালাভের অধিকার হইতে তাহার নিজদিগকে বঞ্চিত করিয়া রাখিয়াছে। ২১১ মাদক ও জয় – { আমরা খমর’ শব্দের অনুবাদ করিয়াছি মাদক দ্রব্য, কেহ কেহ উহার অনুবাদ করেন "মদ বলিয়া। হজরত রচুলে করিম স্বয়ং বলিয়া দিতেছেন ঃ– t 瞩 -کال مسکارخمر -“প্রত্যেক মাদকদ্রব্যই খমর” (বোখারী, মোছলেম, আবুদাউদ, তিরমিজি, নাছাই ) ।