পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/৩৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


"පෆුට්‍රැ. , কোরতমাল শরীফ [ দ্বিতীয় পার। AAA AASAASAASAASAA AAAS AAAAA AAAA AAAAeEAeeA AeAAA AAAA AAAA AAAASAAAAMAMAMAeAAASAASAASAASAASAASAA AAAAeAAA AAAA AAAA S তাহারা তালাকের পর ভিন মাস অপেক্ষা করিবে—অর্থাৎ ঐ সময়ের মধ্যে স্বামীর বিবাহবন্ধন হইতে সে মুক্ত হইতে পরিবে না, সুতরাং অন্যবিবাহও করিতে পারিবে না। এই তিন মাসের মধ্যে যদি তাহারা গর্ভসঞ্চারের লক্ষণ বুঝিতে পারে, তাহা হইলে তাহা প্রকাশ করিয়া দেওয়া তাহদের কর্তব্য । গর্ভবতী স্ত্রীকে সন্তান ভূমিষ্ঠ না হওয়া পৰ্য্যন্ত ইদং পালন করিতে হয়, এই সময় স্বামী তাহার ভরণপোষণ করিতে বাধ্য। নিজের ভাবীবংশধরের গর্ভধারিণীর প্রতি মানুষের একটা আকর্ষণ হওয়া স্বাভাবিক, তাহার শিশুসন্তানকে প্রতিপালন করার ভাবনাও আছে । এই সব কারণে স্বামীর মনপরিবর্তন হওয়াই স্বাভাবিক। এছলামে তালাকের অনুমতি দেওয়া হইয়াছে অগত্যা-পক্ষে । সুতরাং যাহাতে তালাকের সংখ্যা কম হইয়া যায়, প্রত্যেক বিধানেই তাহার প্রতি বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখা হইয়াছে। তাই স্ত্রীদিগকে গর্ভের কথা গোপন করিতে এতটা তাকিদের সহিত নিষেধ করা হইতেছে । ই২৪ স্বামীর অধিকার – তালাক দেওয়ার পর এবং উপরোক্ত ইদতের মধ্যে, স্বামীর যদি মন পরিবর্তন হয় এবং স্ত্রীকে পুনঃগ্রহণ করিয়া সে যদি শান্তির জীবনযাপন করিতে কৃতসঙ্কল্প হইয়া থাকে, তাহা হইলে ঐ সময় পূর্ণ হইয়া যাওয়ার পূৰ্ব্বে তালাকী স্ত্রীকে গ্রহণ করার সম্পূর্ণ অধিকার তাহার আছে। স্বামীকে এই অধিকার দিয়া তালাকের অনাচার যথাসম্ভব কমাইয় ফেলারই চেষ্টা করা হইয়াছে । আয়ুতে বলা হইতেছে—যদি স্বামী ‘এছলাহে’র ইচ্ছা করিয়া থাকে, তাহা হইলে সে অবস্থায় তালাকী স্ত্রীকে পুনঃগ্রহণ করার সম্পূর্ণ অধিকার তাহার আছে। এছলাহ শব্দের অর্থ—যাহা বিগড়াইয়া গিয়াছে তাহা সংশোধন করা— কোন বিপৰ্য্যয়ের ক্ষতিপূরণ করা। ব্যবহারে শান্তি ও মিলনের প্রচেষ্টাকে এছলাহ' বলা হয়। স্বামী যদি গতজীবনের ভুলভ্রাস্তির সংশোধন করিয়া লইতে এবং ভবিষ্যতে স্ত্রীর সহিত শান্তির জীবনযাপন করিতে প্রস্তুত হইয়া থাকে, তাহা হইলে কেবল সেই অবস্থাতেই সে স্ত্রীকে পুনঃগ্রহণ করার অধিকারী । আয়তে এই শিক্ষা খুবই স্পষ্টভাবে বর্ণিত হইয়াছে। কোন স্বামী যদি এই শিক্ষার বিপরীতভাবে তালাকী স্ত্রীকে গ্রহণ করে, তাহা হইলে আল্লার নিকট সে নিশ্চয়ই অপরাধী । ২২৫ স্ট্রীর সমান অধিকার – উপরে স্বামীর একটা অধিকারের কথা বলা হইয়াছে। এই আয়তে বলা হইতেছে যে, স্ত্রীর উপর স্বামীর যেমন কতকগুলি অধিকার অাছে, স্বামীর উপর স্ত্রীরও সেইরূপ কতকগুলি অধিকার আছে। তালাকী স্ত্রীকে পুনঃগ্রহণের প্রসঙ্গেই এই অধিকারের কথা উঠিয়াছে। ইহার তাৎপৰ্য্য এই যে, সন্ধুদেশ্ব প্রণোদিত হইলে স্বামী যেমন স্ত্রীকে পুনঃগ্রহণ