পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/৪১৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


২য় ছুরা, ও৩শ রুকু ] * भेरीञ्, ब्मघ्नहरीश्व खश्ढम्=itब्म 를 NESS) ডাকিয়া বলিলেন—সম্মুখে একনদী উপস্থিত হইতেছে। আমি তোমাজের নেতা ও । অধিনায়ক স্বরূপে আদেশ করিতেছি, কেহ ঐ নদীর জল পান করিতে পরিবে না । ৰে করিবে, আমার মণ্ডলীর অন্তভুক্ত থাকার অধিকার তাহার থাকিবে না। তবে কেহ যদি হাতে করিয়া এক গণ্ডুৰ মাত্র পান করে, তাহাতে বিশেষ বাধা নাই । কিন্তু ঐ পানির BBBB BBB BBB B BBBS BBBB BB BBB BBBDD DBBBSBDDB BBD তাহারাই । so জাতির মঙ্গল ও মুক্তির জন্য যখনই কোন মহৎ ও বৃহৎ সাধনার স্থত্রপাত হইতে আরম্ভ হয়, তখন জাতির সকল স্তর হইতে সে সাধনার জয়ধ্বনি আরম্ভ হইয়া যায় । সেই প্রাথমিক অবস্থায় হুজুগের কোলাহল এতদূর বেশি হইয় পড়ে যে, তাহার মধ্যে দাড়াইয়া মোমেন ও মোনাফেকদিগকে বাছিয়া লওয়া নায়কের পক্ষে খুবই কঠিন হইবা দাড়ায় । কিন্তু মুক্তি, প্রগতি ও জয়যাত্রা প্রভৃতি বলিয়া বাচনিক আম্ফালন করা যতটা সহজ, প্রকৃত মুক্তিকামী মোজাহেদের জয়যাত্রার পথ বস্তুতঃ ততটা সহজ নহে । সে পথ নানাবিধ , পরীক্ষার অসংখ্য কণ্টকে সমাকীর্ণ। এই পরীক্ষার ফলে কপটের দল, ভীরু কণপুরুষের দল, স্বাধসৰ্ব্বস্ব সমাজপতিগণ যাত্রামার্গ হইতে দূরে সরিয়া দাড়াইতে বাধ্য হয়। মুক্তির একনিষ্ট সাধকগণ এই সকল জঞ্জালমুক্ত হইয়া তখনই সমবেত সঙ্গাশক্তি লম্বই প্রকৃত জয়যাত্রা আরম্ভ করিয়া দেন । o o তাল,তের ও র্তাহার সমসাময়িক এহুদীজাতির এই উপাখ্যান দ্বারা মুছলমানকে মুক্তিসংগ্রামের সেই অবশু জ্ঞাতব্য স্তরগুলির কথা বুঝাইয়া দেওয়া হইতেছে। পাঠক দেখিতেছেন, প্রথমস্তরে বানি-এছরইলের প্রধান ব্যক্তিগণ পরজাতির অধীনতা হইতে মুক্তি চাহিতেছে। কিন্তু সে সময়কার তাহদের মানসিকতার তাৎপৰ্য্য এই যে, জাতি বিদেশীর অধীনতা হইতে মুক্ত হউক, আর মুক্ত হইয়া তাহীদের অধীনতার নাগপাশে । আবদ্ধ হউক। জাতির মুক্তির আকাঙ্খা তাহীদের মুখের কথা । কিন্তু তাহীদের অস্তরের ' অস্তস্তলের গৃঢ় কথা এই ছিল যে, পরজাতিকে তাড়াইয়া, তাহারা কয়জন সেই আসনে বসিয়া স্বজাতিকে শাসন ও শোষণ করিতে চায় । কসাই যেমন নেকড়ের মুখ হইতে ছাগলছানা উদ্ধার করিতে চায়, তাহীদের এই জাতির মুক্তিসাধনাও ঠিক সেইরূপ । সকল দেশের • সকল জাতির মুক্তি সংগ্রামের ইতিহাসের প্রথমে, প্রধানদিগের এই মানসিকতার প্রভাব দেপিতে পাওয়া যায় । ২৪৬ আস্থতে পাঠকগণ ইহার পরিচয় পাইয়াছেন । b এই স্তরকে অতিক্রম করিয়া শক্তিমান জননায়ক তাল,ৎ যখন নিজেকে প্রতিষ্ঠি করিয়া লইলেন এবং উদ্যোগ আয়োজন শেষ করিয়া শত্রু জাতির বিরুদ্ধে জয়যাত্রার সঙ্কল্প করিলেন, লক্ষ লক্ষ এছদী জাসিয়া তখন র্তাহার পতাকাতলে সমবেত হইল । কিন্তু । প্রকৃত জননায়ক মাত্রই অবগত আছেন যে, কোন বৃহৎ কাৰ্য্য সমাধা করার ঈস্ট সংহতি শক্তির দরকার, কতিপয় ৰিক্ষিপ্তমনা হুজুগ প্রিয় মানুষের সংখ্যা বৃদ্ধি দ্বারা যে সাধনীর & •