পাতা:কোরআন শরীফ (প্রথম খণ্ড) - মোহাম্মদ আকরম খাঁ.pdf/৪৭৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


مسہ حسي نہ “یہ v جسم --سمیئہ‘‘ ”یعے عے ՑCչՀ 帶 কোরআন শরীফ । [ তৃতীয় পারা পারে। (২) লেখক বা সাক্ষী সত্য কথা বলিলে যে পক্ষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়, তাহাদের পরাজয়ের সমস্ত অভিমান, সমস্ত দ্বেষ ক্রোধ কেন্দ্রীভূত হয় সেই সত্যবাদী সাক্ষীদিগের উপর, এবং এজন্য অনেক সময় তাহাদিগকে লাঞ্ছিত ও উৎপীড়িত হইতে হয়। এইরূপে সৎ ও নিরীহ লোকেরা সাক্ষী হওয়ার নামে শিহরিয়া উঠিবে—সাক্ষী হওয়া ও সাক্ষ্য দেওয়া সমাজের দুষ্ট লোকদের একচেটিয়া পেশায় পরিণত হইবে, সত্য প্রকাশের সৎসাহস জাতির অন্তর হইতে লুপ্ত হইয়া যাইবে—ফলে অনাচারে অত্যাচারে গোটা সমাজটাই জর্জরিত হইয়া পড়িবে। মোছলেম বঙ্গের বর্তমান পল্লী-চিত্রের প্রতি দৃষ্টিদানের সুযোগ যাহাদের ঘটিয়াছে, এই কঠোর সত্যটা র্তাহারা সকলেই মৰ্ম্মে মৰ্ম্মে অনুভব করিতেছেন বলিয়া আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস । ৩১১ আগন্ত্রার শিক্ষণ ঃ– এছলামের শিক্ষা গুণে আরবদিগের গৃহযুদ্ধ ও লুটতরাজ স্থগিত হইল, সুদ খাওয়া ও জুয়া খেলা প্রভৃতি বন্ধ হইয়া গেল, দেশময় শান্তি ও শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠিত হইল। হজরত রছলে করিমের আদশে ও কোরআনের উৎসাহে অনুপ্রাণিত হইয়া তখন তাহারা ব্যবসাবাণিজ্যের দিকে ঝুঁকিয়া পড়িল। এই সময় আল্লার আদেশ হইল, ব্যবসাবাণিজ্য সংক্রান্ত দরকারী দলিল পত্রগুলি লিখিয়া রাখতে। কিন্তু লেখাপড়ার চর্চা তাহদের মধ্যে খুব কমই ছিল। তখনকার ইতিহাসে মুছলমানদিগের মধ্যে দুই চারি জন মাত্র লেখকের নাম জানা যায়। কাজেই ব্যবসায়ের খাতিরেও তাহারা লেখা পড়া শিখিতে বাধ্য হইল—দেখিতে দেখিতে লেখকের সংখ্যা বহুগুণে বৰ্দ্ধিত হইয়া গেল। এইরূপে এই আদেশের কল্যাণে তাহারা যেমন একদিকে সুশৃঙ্খলার সহিত ব্যবসাবাণিজ্য চালাইতে শিক্ষালাভ করিল, অন্যদিকে লেখাপড়ার চর্চাও তাহদের মধ্যে হুহু করির বাড়িয়া চলিল—এবং অৰ্দ্ধ শতাব্দী অতিবাহিত হইতে না হইতে মরুভূমির সেই বিক্ষিপ্ত বিশৃঙ্খল ও নিরক্ষর আরব, ধৰ্ম্মে অর্থে জ্ঞানে কৰ্ম্মে জগতের শ্রেষ্টতম জাতিতে পরিণত হইল। সমস্ত আদেশ নিষেধের মধ্য দিয়া কোরআন মুছলমানকে ইহারই শিক্ষা দিয়াছে এবং ইহাই হইতেছে আল্লার শিক্ষা । ৩১২ দখলী বন্ধক — অর্থাৎ এ অবস্থায় কোন অস্থাবর পদার্থ বন্ধক স্বরূপ প্রাপকের নিকট জামিন রাখিতে হইবে। আয়তে প্রবাসের কথা বলা হইয়াছে, সুতরাং বাড়ীতে থাকার সময় বন্ধৰ্ক দেওয়া চলিতে পারে কিনা—ইহা লইয়া অকারণে একটা দীর্ঘ আলোচনার স্বষ্টি করা হইয়াছে। আয়তে প্রবাসের কথা বিশেষরূপে বর্ণিত হইলেও, ইহা প্রবাস-অপ্রবাস সকল অবস্থায় প্রতি সাধারণ ভাবে প্রযুজ্য হইবে। হজরত রচুলে করিম মদিনার এহুদী মহাজনের নিকট নিজের বর্গ বন্ধক রাখিয়া শস্ত কর্জ করিয়াছিলেন—এই হাদিছের দ্বারা তাহাও সপ্রমাণ