পাতা:কোরাণ শরিফ - প্রথম ভাগ.pdf/২০১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তুরা নেসা । సిసి) ঈশ্বরের ভূত্য হইতে কদাচ ঈশ সঙ্কুচিত নহে ও পারিষদ দেবগণ ও (সঙ্কুচিত নহে ) যাহারা তাহার দাসত্ব করিতে সঙ্কুচিত হয় ও অহঙ্কার করে তিনি তাহাদিগকে একত্র আপনার নিকটে সমুখাপিত করিবেন * । ১৬৯ ৷ পরিশেষে কিন্তু যাহার বিশ্বাস করিবে ও সৎ কৰ্ম্ম করিবে তাহাদিগকে তাহাদের পারিশ্রমিক (ঈশ্বর ) পূর্ণ দিবেন, ও অাপন কুপা গুণে তাহাদিগকে অধিক দিবেন, কিন্তু যাহারা সঙ্কুচিত হয় ও অহঙ্কার করে । দুঃখ জনক শাস্তিযোগে তাহাদিগকে শাস্তি দিবেন । ১৭০ ৷ + তাহারা আপনাদের জন্য পরমেশ্বর ব্যতীত কোন বন্ধুও সাহায্যকারী পাইবে না। ১৭১ ৷ হে লোক সকল, নিশ্চয় তোমাদের প্রতিপালক হইতে তোমাদের নিকটে প্রমাণ উপস্থিত হইয়াছে, এবং আমি তোমাদের প্রতি উজ্জ্বল জ্যোতি অবতারণ করিয়াছি ॥১৭২ পরে কিন্তু যাহারা ঈশ্বরের প্রতি বিশ্বাস স্থাপন করিয়াছে ও তাহাকে অবলম্বন করিয়াছে, সত্বর তাহাদিগকে তিনি আপন । অনুগ্রহের মধ্যে ও দয়ার মধ্যে প্রবেশ করাইবেন এবং তাছাদিগকে আপনার দিকে সরল পথ প্রদর্শন করিবেন । ১৭৩ ৷ তাহার তোমার নিকটে ব্যবস্থা জিজ্ঞাসা করিতেছে, তুমি বল

  • কথিত আছে যে ঈশায়ীগণ হজরতকে বলিয়াছিল “ হে মেহম্মদ, তুমি ঈশার প্রতি কেন দোষারোপ কর।” হজরত জিজ্ঞাসা করিলেন “ আমি র্তাহার সম্বন্ধে এমন কি কথা বলিয়। থাকি যে তোমর। তাছা দোষ বলিয়। গণ্য করিতেছ?” তাছার বলিল “ তুমি ৰলিয়া থাক যে তিনি ঈশ্বরের ভূতা, তাহার ভূতত্ব স্বীকারই যে দোষ।” হজরত বললেন “ ঈশ্বরের দাসত্ব স্বীকারে কোন দোষ নাই, কেছই ইহt:ক দোষ বলিয়া গণ্য কবে না।” তখন এই কথার অনুরূপ এই আয়ত অবতীর্ণ হয়। (ত, ৰে, ) 顧