পাতা:ক্রমশ ফসিলের মত একটা শব্দ.pdf/১৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


তবুও অর্কেস্ট,ণর মতো কিছুক্ষণ মানুষের আনন্দ-যন্ত্রণার সঙ্গে অনেককাল অদৃষ্ঠভাবে জলের কণার মতো মিশে থাকলে কোনো ভাবেই সুরের সূক্ষতায় জীবনের ব্যক্তিগত সেতারকে বেঁধে নেয়া যায় না – অভিজ্ঞতাগুলো কেবলই বিদেশী অগতির মতো চোখের অণকাশ দিয়ে ঝটফট ক’রতে ক’রতে হারিয়ে যেতে থাকে এবং বুকের গভীরে শেকড়বাকড়ের শরীরে ক্রমশ অস্থির দীর্ঘশ্বাসে ঘুণ ধ’রে যায় । প্রতিটি মামুষের নিজস্ব আলগা মাটিতে কিছু কিছু নিজস্ব কেঁচো গজিয়ে ওঠে ব’লেই একই দু:খসুখের ঝকঝকে কলকজাতেও একই স্বরে মাহুষেরা কখনই বেজে ওঠে না – অর্কেস্টার ভেজাল আবহাওয়ার মতো তবুও সকলকেই কিছুক্ষণ পৃথিবীর আসরে আসতে হয় শুধু, অথবা ভীষণ ধুলোটে অবহেলায় নিঃসঙ্গ খোপের মধ্যে হাড়গোড় মুড়ে ঘুমিয়ে থাকতে বাধ্য হ’তে হয় । কেন-যে পড়ন্ত বেলায় আজও গভীর রগিণীগুলোকে সেতারে তন্ময় ব্যঞ্জনায় জাগাতে পারছিনা জানি না – বুকের জবজবে তারগুলোয় যখনই অনেক মমতার মেজাপ ছটো ঝু কে আসে তখনই ছিড়ে টুকরো টুকরো হ’য়ে একটুকরো ভারী চেলাকাঠের মতো প’ড়ে থাকি । S 5