পাতা:ক্রমশ ফসিলের মত একটা শব্দ.pdf/৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ভগ্নাংশের সরলের মতে জীবন জীবনটা ভগ্নাংশের সরলের মতো ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা জোর দিয়ে কখনই যার সঠিক উত্তরটা সঞ্জ ব’লতে পারা যায় না । কখনো ভয়ঙ্কর হিংসায় সাইলকের মতো বুকের মাংস কেটে নিতে ও দ্বিধা করছিনা – কখনো হর্ষবর্ধনের মতো সর্বস্ব দান ক’রে ও তৃপ্ত হ’তে পারছিনা । জীবিকা নারী কখনো জীবনে জল তরঙ্গের মতো বেজে উঠছে – কখনো কড়িকাঠ থেকে ঝুলে থাকা দড়ির ফাসের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি । একবার দেখছি পিঠে বোঝা মুখে কাটালত পায়ের তলায় অফুরন্ত গনগনে বালি, আবার কখনো দেখছি বৃষ্টির মতো ভালোবাসা আমার কালো ব্যথাগুলোকে ধুয়ে দিচ্ছে । কখনো পরাজয় লজ্জা গ্লানি সমস্ত সত্তাকে চুরমার ক’রে ধুলোয় মিশিয়ে দিচ্ছে, কখনো বিজয়ী সম্রাটের মতো রথের চাকা মালা অার স্তবকের ভূপে আটকে যাচ্ছে । আমি মনুষ্যত্বের মুমুঘু রক্তের স্রোত থেকে সবুজ দ্বীপের মতো চেতনাকে জাগাতে চেয়েছিলাম আমি বিশ্বাসের নিহত অন্ধকারের বুক থেকে পরশ পাথরের স্পশের মতো উঠে আসতে চেয়েছিলাম, কিন্তু জীবনটা আজ ও ভগ্নাংশের সরলের মতো ঘন কুয়াশার চাদরে ঢাকা জোর দিয়ে যার সঠিক উত্তরটা কখনই বলতে পারা যায় না ! ●〉