পাতা:গল্পসল্প - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১০৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গল্পসল্প কালো কুমড়ে টাটকা লঙ্ক দেখিয়ে দেব লবোডঙ্কা । আসানসোলে গাড়ি এসে থামল, বুড়ো মানুষটি নেবে গেলেন, সেখানে স্বান করে নেবেন । স্নান সেরে গাড়িতে ফিরতেই বিচকুন বললে, এ গাড়িতে থাকবেন না মশায় ! কেন বলে। তো । ভারি ইদুরের উৎপাত । ইদুরের ? সে কী কথা ! দেখুন-ন আপনার ঐ হাড়ির মধ্যে ঢুকে কী কাণ্ড করেছিল। ভদ্রলোক দেখলেন র্তার যে হাড়িতে কদম ছিল সে হাড়ি ফাক, আর যেটাতে ছিল খইচুর তার একটা দানাও বাকি নেই। বিচকুন বললে, আর আপনার স্যাকড়াতে কী একটা বাধা ছিল সেটা শুদ্ধ নিয়ে দৌড় দিয়েছে । সেটাতে ছিল ওঁর বাগানের গুটি-পাঁচেক পাকা আম । ভদ্রলোক একটু হেসে বললেন, আহ, ইকুরের অত্যন্ত ক্ষিদে পেয়েছে দেখছি । বিচকুন বললে, না না, ও জাতটাই ওরকম, ক্ষিদে না পেলেও খায়। ছেলেগুলো চীৎকার করে হেসে উঠল ; বললে, হঁ। মশায়, আরো থাকলে আরো খেত । ভদ্রলোক বললেন, ভুল হয়েছে, গাড়িতে এত ইহর একসঙ্গে যাবে জানলে আরো কিছু আনতুম। এত উৎপাতেও বুড়ে রাগ করলে না দেখে ছেলেরা দমে গেল— রাগলে মজা হত । X o 8