পাতা:গল্পসল্প - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
বড়ো খবর

 কুসমি বললে, তুমি যে বললে, এখনকার কালের বড়ো বড়ো সব খবর তুমি আমাকে শোনাবে, নইলে আমার শিক্ষা হবে কী রকম ক’রে দাদামশায়।

 দাদামশায় বললে, বড়ো খবরের ঝুলি বয়ে বেড়াবে কে বলে, তার মধ্যে যে বিস্তর রাবিশ।

 সেগুলো বাদ দাও-না!

 বাদ দিলে খুব অল্প একটু বাকি থাকবে, তখন তোমার মনে হবে ছোটো খবর। কিন্তু আসলে সে’ই খাঁটি খবর।

 আমাকে খাঁটি খবরই দাও।

 তাই দেব। তোমাকে যদি বি. এ. পাস করতে হত সব রাবিশই তোমার টেবিলে উঁচু করতে হত; অনেক বাজে কথা, অনেক মিথ্যে কথা টেনে বেড়াতে হত খাতা বোঝাই ক’রে।

 কুসমি বললে, আচ্ছা দাদামশায়, এখনকার কালের একটা খুব বড়ো খবর দাও দেখি খুব ছোটো ক’রে, দেখি তোমার কেমন ক্ষমতা।

 আচ্ছা, শোনো।—

 শান্তিতে কাজ চলছিল।

 মহাজনী নৌকোয় ঘোরতর ঝগড়া চলছে পালে আর দাড়েঁ। দাঁড়ের দল ঠক্ঠক্ করতে করতে মাঝির বিচার-সভায় এসে উপস্থিত, বললে, এ তো আর সহ্য হয় না। ঐ যে তোমার অহংকেরে পাল বুক ফুলিয়ে বলে আমাদের ছোটোলোক। কেননা আমরা দিনে রাতে নীচের পাটাতনে বাঁধা থেকে জল ঠেলে ঠেলে চলি। আর উনি চলেন খেয়ালে, কারে হাতের ঠেলার তোয়াক্কা

২৬