পাতা:গল্পস্বল্প.djvu/১৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


( > 0 ) 、バ" গোলাপের গাছ, সেই গাছে একটি সুন্দর প্রস্ফুটিত গোলাপ। লাবণ্য সেই গোলাপটি তুলিতে হাত বাড়াইল! এই সময় সহস৷ কোথা হইতে পূৰ্ব্বেকার পরীটি আসিয়া বলিলেন, “ইহা তুলিও ল, ঐ দেখ কত ধৈৰ্য ফুল ফুটিয়া রহিয়াছে—উহার একটি তোল, গোলাপ অপেক্ষা দেখ ঐ ফুলগুলি কত সুন্দর। গোলাপ তু তোমাদের বাগানে অনেক আছে। ঐ ধৈর্য্যফুল একটি তুলিয়া লইয়া যাও, উহা মৰ্ত্ত্যলোকে পাইবে না, ও ফুলতোমাদের বাগানে রাখিলে বাগান শোভা করিয়া চিরদিন নবীন ভাবে ফুটিয়া থাকিবে। উহা নন্দন কাননের ফুল, পৃথিবীর ফুলের মত শুকাইয়া যায় না। আর ঐ গোলাপের গাছ পৃথিবী হইতে আনিয়া এ কাননে রোপণ করা হইয়াছে, তুলিতে না তুলিতে শুকাইবে।” কিন্তু লাবণ্য তখন গোলাপ তুলিতে হাত বাড়াইয়াছে— হাতের ফুল ফেলিয়া কে আবার তখন দূরে যায়, সে বলিল— “অত দূরে আমি আর যাইতে পারি না”—বলিয়া তাড়াতাড়ি গোলাপটি ছিড়িয়া লইল,—তাড়াতাড়িতে গোলাপের র্কাটায় বিধিয়া তাহার হাত হইতে বিন্দুবিন্দু রক্ত পড়িতে লাগিল, তখন সে গোলাপটি ফেলিয়া দিয়া কঁদিতে আরম্ভ করিল। " পর বলিলেন “দেখ আমার কথা শুনিলে তোমাকে এই কষ্টভোগ করিতে হইতন—ঐ যে ধৈর্য্যফুল দেখিতেছ উহার কাটা নাই। ভাল কথা না শুনিয়া কাজ করিলে দেখ কি রূপ বিপদে পড়িতে হয়—” . পরীর এই উপদেশে লাবণ্য আরো রাগিয়া গেল, সে কাহারে উপদেশ শুনিতে ভাল বাসিত না। লাবণ্য রাগ করিয়া সেখান হইতে চলিয়া %ီ' কিছু দূর গিয়া একবার ফিরিয়া, দেখিণ-পূৰ্ব্বে বাগানের আর চিত্ত্বও নাই, তাহ হইতে জুন