পাতা:গল্পস্বল্প.djvu/৬৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


( ७० ) সরকারী পদার্থ দ্বারা শরীরের ক্ষতি সৰ্ব্বাপেক্ষা অধিক পূরণ হইয়া থাকে। অঙ্গারাম ও জল যাহা সৰ্ব্বদা ক্ষয়প্রাপ্ত শরীরজাত দ্রব্য মধ্যে পাওয়া যায়, তাহাও সত্ত্বকারী পদার্থের অম্লজান ও অঙ্গারজান হইতে উদ্ভূত হইতে পারে। * তোমরা এখন বুঝিতে পারিয়াছ সত্ত্বকারী পদার্থ চারি প্রকার ভক্ষ্যদ্রব্যের মধ্যে সৰ্ব্ব প্রধান, এবং কোন কোন অবস্থায় অন্ত শ্রেণীর সাহায্য ব্যতিরেকেও উহা প্রাণধারণোপযোগী হইতে পারে। কিন্তু ইহা সত্বেও সত্ত্বকারী পদার্থ অসুবিধাজনক ও অপরিমিত থাদ্য। একটি উদাহরণ দিয়া বুঝান যাউক। ডিম্বসার একপ্রকার প্রধান সত্ত্বকারী পদার্থ। ইহার শতভাগের মধ্যে ৫৩ ভাগ অঙ্গারজান ও ১৫ ভাগ ক্ষারজান পাওয়া যায়। যদি কোন ব্যক্তিকে কেবল ডিম্বের শ্বেত ভাগ আহার দেওয়া যায় তাহ। হইলে মোটামুটি ধরিতে গেলে সে ব্যক্তি প্রত্যেক ক্ষারজান ভাগের সহিত সাৰ্দ্ধ তিন ভাগ অঙ্গারজান আহার করিবে। কিন্তু ইহা প্রত্যক্ষ দেখা যায় যে একজন মুস্থকায় পুষ্ট মনুষ্য যে নিজ ভার ও স্বাভাবিক উত্তাপ রক্ষণের উপযুক্ত মধ্যবিধ ব্যায়াম করিয়া থাকে, তাহার দেহ হইতে চারি সহস্ৰ গ্রেণ অঙ্গার ও তিনশত গ্ৰেণ ক্ষারজান নির্গত হয় অর্থাৎ ক্ষারজানের তের গুণ অঙ্গারজান নির্গত হয়। অতএব যদি কোন ডিম্বসার হইতে তাহাকে ৪০০০ সহস্ৰ গ্রেণ অঙ্গারজান লইতে হয় তাহ হইলে ঐ পদার্থ ৭৫৪৭ গ্ৰেণ আহার করিতে হয় । কিন্তু ৭৫৪৭ গ্রেণ ডিম্বসারে ১১৩২ গ্ৰেণ ক্ষারজান আছে অর্থাৎ যত ক্ষারজানের আক শুক তাহার প্রায় চারিগুণ অনর্থত আহার করিতে হয়। এন্ধাস্থ্যরক্ষার একটি প্রধান নিয়ম এই ষে আল্লার বলৱৰ্থক ও