পাতা:গল্পাঞ্জলি.djvu/১৪০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


>○8 গল্পাঞ্জলি সংসারে মায়া—এত যে কষ্ট দিয়াছে, তাহার জন্যও ক্ষেত্রমোহন ঝর ঝর করিয়া অশ্রুপাত করিতে লাগিলেন । আরও মাস ছয় কাটিল। ক্ষেত্রমোহনের পাশ্বচর বন্ধুবান্ধবগণ নানা স্থানে পাত্ৰী অন্বেষণে ব্যস্ত হইলেন । অবশেষে হুগলীর নিকটবর্তী একটি গ্রামে সুযোগ্য পাত্রীর সন্ধান পাওয়া গেল। ক্ষেত্রমোহন স্বয় গিয়া দেখিয়া আসিলেন। মেয়েটি ডাগর—দেখিতেও ভাল। বিশেষ মেয়ের পিতা একটি বড় জমিদারের নায়েব---ওদিককার মামলা মোকৰ্দমা গুলিও এই স্থত্রে ক্ষেত্রমোহন বাবুর করায়ত্ত হইবে । কন্যার পিতা রজনীকান্ত ঘোষাল ইংরাজি লেখাপড়া জানা ব্যক্তি । বিবাহের কথাবার্তা পাকা হইল । বরের খুড়া মহাশয় গ্রাম হইতে আসিয়াছেন-কলা আশীৰ্ব্বাদ । প্রভাতে আফিসকক্ষে বসিয়া মই চারিজন মকেলের সঙ্গে মোক্তারবাবু কথাবাৰ্ত্ত কহিতেছিলেন—খুড় মহাশয় একথানি “বঙ্গবাসী’’ হস্তে ঘরের কোণে বসিয়৷ তামাকু সেবন করিতেছিলেন। এমন সমস্ত্র ডাকপিয়ন আসিল, ক্ষেত্রমোহন বাবুব হস্তে একখানি পত্ৰ দিয়া গেল । থামের উপর হস্তাক্ষরের প্রতি দৃষ্টিপাত করিয়া ক্ষেত্রমোহনের মাথ বুরিয়া গেল । ছুই চারিবার চক্ষু রগড়াইয় বারম্বার খামখানির শিরোনামা পরীক্ষা করিতে লাগিলেন। কুছে আনিয়া, দূরে সরাঈয়ী, নানাপ্রকারে দেখিলেন । অবশেষে কম্পিত হস্তে পত্ৰখানি খুলিলেন। পড়িয়া, তাহার মুখ বিবর্ণ হইয়া গেল। মক্কেলগণকে বলিলেন—“আচ্ছা এখন তোমর যাও—আজ সকালে সকালেই কাছারি যাব—সেই খানেই বাকী কথh বাৰ্ত্ত হবে এখন "* মৰুেলগণ চলিরা গেলে খুড়া মহাশয় বলিলেন—“চিঠি এল ক্ষেত্তর ?"