পাতা:গল্পাঞ্জলি.djvu/১৬১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


মাতৃহীন >QQ মাঝে আমার কবিতা ছাপা হইত। তখনি বন্ধুর ভবিষ্যদ্বাণী করিয়াছিলেন, কালে আমি একজন উৎকৃষ্ট কবি হইয়া দাড়াইব । আমার ভিতরে প্রতিভার অগ্নিস্ফুলিঙ্গ রহিয়াছে –ইহা স্পষ্ট অনুভব করিলাম। আমিই বঙ্গের ভবিষ্যৎ শেক্সপিয়ার তাহাতে সন্দেহ মাত্র রহিল না । কল্যই একটা ঐতিহাসিক নাটক রচনা আরম্ভ করিয়া দিব। “রচিব মধুচক্র, গৌড়জন যাহে আনন্দে করিবে পান সুধা নিরবধি”—এই কথাগুলি অনুচ্চস্বরে বারস্বার বলিতে বলিতে জিহবা জড়াইয়া আসিল । তথন উঠিয়া কোন ক্রমে শয়নকক্ষে প্রবেশ করিলাম। দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ পরদিন নয়টার সময় শয্যাত্যাগ করিয়া দেখি, তুষারপাত হইতেছে। তাড়াতাড়ি প্রাতরাশ সমাধা করিয়া মহোৎসাহে সেই তুষারের মধ্যেই বাহির হইয়া পড়িলাম। অম্নিবসে আরোহণ করিয়া বৃটিশ মিউজিয়মে গিয়া উপস্থিত। একশিলিং দিয়া একখানি চক্‌চকে বাধানে খাত। কিনিয়া, মিউজিয়মের পাঠাগারে (Reading Room) প্রবেশ করিলাম । এই খাতাথানিই বঙ্গীয় শেক্সপিয়ারের সর্বপ্রথম নাট্যরচনা বক্ষে ধারণ করিবার সৌভাগ্য লাভ করিবে । বৃটিশ মিউজিয়মের এই পাঠাগার জগতের অষ্টম আশ্চৰ্য্য বলিলেও অত্যুক্তি হয় না। সৰ্ব্বকালের ও সৰ্ব্বজাতির সর্ববিদ্যা এখানে পুঞ্জীভূত । এই সুবিপুল পাঠাগারটির তলদেশ বৃত্তাকার । কেন্দ্রস্থলে কতকটা স্থান কৰ্ম্মচারিগণের বসিবার জন্ত । সেই স্থানটি বিরিয়া বৃত্তাকারে সজ্জিত তিনসারি পুস্তকাধার—তাহাতে সহস্ৰাধিক খণ্ডে বিভক্ত গ্ৰন্থতালিক