পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/১৬৪

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


పిఉఆ ' গল্প-গ্রন্থাবলী “কেন ? প্রথম দিনেই ছিল সাতাশটি। পঞ্চশজন পয্যন্ত নেওয়া হবে—সে পঞ্চাশ ত কোন কালে পরে যাবার কথা। এত কমে গেল কি করে বউ ?” সষমা বলিল, “পঞ্চাশ কোনও দিনই হয়নি। একচল্লিশ বিয়াল্লিশ জন হয়েছিল। তার পর আবার অনেকে ছেড়ে দিলে ।” "কেন ? ছেড়ে मिटढन কেন ?" “দ,জনার, ছেলে হবে বলে তারা চলে গেছে। প্রেমতত্ত্বের ব্যাখ্যা শনে সাত আটজন পালালো। আরও তিন চারজন তাদের স্বামীদের মত থাকলেও শবশর খবাশুড়ীর মত নেই, তাঁরা শুনে রাগ করেছেন, সেই ওজনহাতে কলেজ ছেড়ে দিয়েছে। দেখ, আমারও কিন্তু আর ভাল৭লাগছে না—পাছে তুমি রাগ কর, সেইজন্যে এতদিন আমি তোমার বলিনি। বিশেষ ঐ সরোজ রায়—যখন থেকে নবরশিমতে আমার গল্পটা বেরিয়েছে, তখন থেকে আমার সঙ্গে যেন কি রকম ব্যবহার করে।”

  • কি রকম ব্যবহার করে ? ' পরষ শিক্ষক আর যাবতী ছাত্রীর মধ্যে যে শোভন ব্যবধানটুকু থাকা দরকাব তা সে আর রেখে চলছে না।"

অবিনাশ হাসিয়া বলিল, “ওটা তোমার ভুল, সুষমা। তরণ সাহিত্যের তিনি একজন অত বড় লেখক—অত বড় কাগজের সম্পাদক—হঠাৎ তাঁর প্রতি কোন মন্দ উদ্দেশ্য আরোপ করা তোমার উচিত নয়। তুমিই হলে ক্লাসের সবচেয়ে ভাল ছাত্রী—সবার iচয়ে তোমার উপরেই বেশী ভরসা বাখেন—তাই বোধ হয একট আত্মীযতার ভাব এসে পড়েছে। ওটা কিছ নয়।” কিছুদিন পরে সুষমার খকেীর ভাদর হইল। জবরটা ক্ৰমেই বন্ধি পাইতে লাগিল। এই কাবণে এক সপ্তাহ সুষমা কলেজ যাইতে পারিল না। সপ্তাহ পরে, খাকী আরোগ্য লাভ করিলে, অবিনাশ সন্ত্রীকে আবার যথারীতি কলেজে পোছাইয়া দিয়া আসিল । যথাসময়ে সন্ত্রীকে আনিতে গিষা অবিনাশ শুনিল, আজ কলেজ বন্ধ-রাসপণিমার ছয়টি। সীর খোঁজ করিতে বারবান বলিল, মাইজী বাড়ী চলিয়া গিয়াছেন। প্রবল জনরে তিনি কাঁপিতেছিলেন, চক্ষ দইটি লাল-সরখে হইয়াছিল, বারবান ট্যাক্সি ডাকিয়া তাঁহাকে উঠাইয়া দিয়াছে। অবিনাশ মহা দুশ্চিন্তাগ্রস্ত মনে ট্রামে বাসায় ফিরিল। বাসায় আসিয়া ভূতোব নিকট শুনিল—মাইজী কলেজ হইতে ট্যাক্সিতে ফিবিয়া আর উপরে উঠেন নাই, ঝিকে ডাকিযা গঙ্গাস্নানের বসাদ আনিতে আদেশ দিয়া কালীঘাট যাতায়াতের জন্য তাহাকে ঠিকাগাড়ী আনিতে বলিলেন। গাড়ী আসিবামাত্র খকেীকে ও ঝিকে লইয়া তিনি কালীঘাট যাত্রা করিয়াছেন। শনিয়া অবিনাশ অত্যন্ত বিস্মিত হইল। জিজ্ঞাস করিল, “তাঁর শরীর কেমন দেখলি ?” ভূত্য বলিল, “কেন, শরীর ত ভালই ছিল বাবা। তিনি বলেছেন, গংগাস্নান কবে কালীঘাটে পজো দিয়ে তার পর ফিরবেন। বললেন বাব এলে বোলো তিনি tযন না ভাবেন ৷” ব্যাপারটা অবিনাশের নিকট দভোঁদা প্রহেলিকার মত মনে হইল। প্রবল জবর ও রক্তচক্ষ লইয়া কলেজ হইতে যে মানুষ চলিয়া আসিল, বাড়ী আসিয়াই, তার জনর ভাল হইযা গেল, সে গঙ্গাস্নানে বাহির হইল! হঠাৎ কালীঘাটে পজো দিবারই বা অথ* কি ? যাহা হউক, অবিনাশ ধৈয্য সহকারে সত্রীর প্রত্যাগমন প্রতীক্ষায় বসিয়া রহিল।