পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/১৬৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


১৬o গল্প-গ্রন্থাবলী গ্রীমবিকাশের পর সমস্ত কলেজগুলি খলিল। কত্তা ও গহিণীতে পরামর্শ করিয়া প্রমীলাকে বি-এ পাঁড়বার জন্য কলেজে ভত্তি করিয়া দেওয়াই স্থির করিলেন-পড়াশনা লইয়া থাকিলে, তব উহার মনটা একটু ভাল থাকিবে—এমন কি ক্ৰমে সেই অসামাজিক উদ্ভট বিবাহের বাসনা সে পরিত্যাগ করিতে পারে। তবে বোডিং-এ মেয়েকে আর রাখা হুইবে না, বাড়ী হইতেই প্রত্যহ কলেজে যাইবে। প্রমীলা নিয়মিত ভাবে কলেজ যায়। কলেজের ফেরৎ সব সময় বাড়ী অাসে না, তার সখীদের গহে গিয়া সময় যাপন করে। মেয়ের মন খারাপ, মা বাপ তাহাতে আপত্তি করেন না। সকুমারী-নানী তাহার এক সখীর, গত বৎসর নব্য ব্যারিস্টার বসন্ত রায়ের সহিত বিবাহ হইয়াছে—তাহারা ভবানীপুরে বাস করে, প্রমীলা অনেক সময় সেই সকুমারীর গহে গিয়া দীঘ সময় যাপন করে। স্কুমারীও মাঝে মাঝে প্রমীলাদের বাড়ীতে বেড়াইতে আসে । কাত্তিক মাসের শেষে প্রমীলা জনরে পড়িল। জনরের বিরাম হয় না। গৃহচিকিৎসক দত্ত সাহেব আশঙ্কা প্রকাশ করিলেন–জবরটা টাইফয়েডে না দাঁড়ায় ! সপ্তাহ অতীত হইল। রক্ত পরীক্ষা করিয়া, টাইফয়েডই সাব্যস্ত হইল। বড় বড ডাক্তারদের পরামর্শ সভা বসিল। শুশ্ৰুষার জন্য তিনজন মেম নাস নিযুক্ত হইল । যথারীতি চিকিৎসা ও শাশ্রষা চলিতে লাগিল। মহা দুশ্চিন্তায় এক একটা করিয়া তিনটা সঙ্কটকাল উত্তীণ হইয়া গেল। সকুমারী প্রত্যহ আসে। সারাদিন থাকে, বিকালে বাড়ী যায়। ক্ৰমে ডাক্তারেরা বলিলেন, আর আশঙ্কা নাই। কিন্তু অন্য একটা মহা বিভ্রাট উপস্থিত। গত তিন দিন প্রমীলার মখে কেহ বাক্যক্ষরণ হইতে শনে নাই। কোনও কথা জিজ্ঞাসা করিলে সে ইসারায় উত্তর দেয়। পিতা আসিয়া জিজ্ঞাসা কবেন, “কেমন আছ মা ?” প্রমীলা মাথা হেলাইয়া জানায়—“ভাল।” মা আসিয়া বলেন, “ক্ষিধে পেয়েছে কি ? একটু বেদানার রস খাবে ?" প্রমীলা মাথা নাড়িয়া জানায়—খাইবে না। ছোড়দা জিজ্ঞাসা করে—“তুই কথা কোসনি কেন পিমি ?” প্রমীলা ওঠযগেল সঙ্কুচিত করিয়া জানায়—কি জানি ? “তুই কি কথা কইতে পারছিসনে ?” প্রমীলা পন্টভাবে মাথা নাড়িয়া জানায়—“না।” ডাক্তারেরা বলিলেন, ব্রেণের পাঁচ সেন্টর ডিস্টাবড হইয়াছে—একটা সন্থে হইলেই, দেহে একটা বল পাইলেই ওটা বোধ হয় আপনিই ঠিক হইয়া যাইবে। নিজৰ’র হইবার দশ দিন পরে প্রমীলা অন্নপথা করিল; কিন্তু কথা কহিল না। প্রমীলা এখন উঠিয়া,হাটিয়া বেড়ায়—বই পড়ে—কিন্তু কেহ কোনও কথা জিজ্ঞাসা করিলে, ইসারায় অথবা কাগজে লিখিয়া উত্তর দেয়। পিতা কর্তৃক জিজ্ঞাসিত হইয়া কাগজে লিখিয়া দিল—“বাবা, আমি কথা কহিতে চেষ্টা করিতেছি, কিন্তু পারিতেছি না।” আবার বড় বড় ডাক্তারদের বৈঠক বসিল: প্রেকৃপসন প্রস্তুত হইল, ঔষধ সেবন চলিতে लागिाल; কিন্তু কোনও ফল দাঁশল না। পিতামাতা আত্মীয স্বজন তখন হতাশ হইলেন : সিথর করিলেন, মেয়েটি জন্মের মত বোবা হইয়া গেল। मद्भ्षन्न मिन. ७कप्लेि ७कीछे कब्रिग्ना काफ़ेिब्रा याई८ङ लाशिज ।