পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/৩৪১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ट्टणम्न-काझिनौ రిeరి চল্লিশটি বানর পণ হইত, এবং ক্ষমতায় তোমার পিতা পৃথিবীতে অম্বিতীয় হইতেন। কিন্তু একটি কম বলিয়া এ সকল বানরের স্বারায় কোন কাবাই হইবে না।” । - রাজকুমার কহিলেন—“তবে ত সকলই ব্যর্থ হইল।” BBB DDDSDD BBDS DD DB DBBDSgBB DD DBBDD gDD মহা বিপদ, তখন এখান হইতে তোমার পলায়ন করাই শ্রেয়কর। মালেক সাদেকের নিকট গিয়া, তোমাকে দেখাইয়া, তাঁহাকে সকল কথাই বলি। তোমার পিতার প্রতি পবে বন্ধত্ব স্মরণ করিয়া তিনি তোমার সহায় হইতে পারেন। তোমাকে সকল বিপদ হইতে তিনি রক্ষা করিতে পারেনা। এক কলসী মোহর যাহা রাখা আছে, লইয়া গিয়া - তাঁহাকে উপহার দেওয়া যাইবে। যদি শেষ বানরটি তিনি তোমায় দেন, তবে তোমার তুল্য নরপতি ধরাধামে কেহ থাকিবে না।” - শাহজাদা বলিলেন—“কিরাপে আমরা পলায়ন করিব ?” মবারক বলিল—“তাহার জন্য কোনও চিন্তা নাই। সে উপায়ও আমি স্থির झीव्रम्नाझि ।” দ্বিতীয় পরিচ্ছেদ এই কথোপকথনের কয়েক দিন পরে, মবোরক একদিন রাজসমীপে উপস্থিত হইয়া কহিল—“প্রভু, আপনি যাহা আজ্ঞা করিয়াছিলেন, তাহার একটি উপায় আমি সিথর कर्गब्रझाक्कि ।” বাদশাহ প্রণীত হইয়া কহিলেন—“কি উপায় সিথর করিয়াছ ?” মবোরক বলিল—“যুবরাজকে যদি এখানে হত্যা করা যায়, তাহা হইলে লোকের মধ্যে ক্ৰমে জানাজানি হইবার সম্ভাবনা। তাহাতে আপনার বিলক্ষণ অপযশ আছে। তাহা অপেক্ষা দেশভ্রমণের ছলে তাঁহাকে দরদেশে লইয়া গিয়া হত্যা করাই নিরাপদ। ফিরিয়া আসিয়া রটনা করিয়া দিব যে, তিনি কোনও মারাত্মক রোগে মৃত্যুমুখে পতিত হইয়াছেন। ইহাতে প্রজাবগের এবং অপর কাহারও কোন সন্দেহের কারণ থাকিবে না।” এই প্রস্তাব শ্রবণ করিয়া বাদশাহ বলিলেন—“মবারক, তুমি যথার্থই বলিয়াছ। যাও, যবেরাজকে লইয়া গিয়া, কোনও দরদেশে কাৰ্য্য শেষ কর। তাহা হইলে আমি নিবি ঘো রাজ্যভোগ করিতে পারিব এবং তোমাকেও পুরস্কার স্বরুপ প্রভূত ধনসম্প্রপদ প্রদান করিব।” - - মবোরক, দরদেশে যাইবার ব্যয় এবং নিজ পুরস্কারের অদ্ধাংশ পঞ্চাশ সহস্র বর্ণমাদ্রা লইয়া, বাদশাহকে সেলাম করিয়া প্রস্থান করিল। যাত্রার আয়োজন হইতে লাগিল। সঙ্গে সৈন্য সামন্ত বা ভূত্যাদি কেহই যাইবে না। মবোরক বাজার হইতে মালেক সাদেকের জন্য বিবিধ বহমাল্য, উপহারাদি ক্রয় করিল। ভূগৰ্ভস্থ সেই এক কলসী মোহর উঠাইয়া লইয়া, শুভদিন, দেখিয়া, যবেরাজসহ যাত্রা করিল। দুইজনে দুইটি উৎকৃষ্ট অশের আরোহণ করিয়া রাজধানী হইতে বাঁহগত হইয়া, ক্ৰমাগত চল্লিশ দিন গমন করিল। - - সে দিন চলিতে চলিতে রুমে রাত্রি হইল, অন্ধকার হইয়া আসিল। রাত্রি এক প্রহর হইলে মবোরক বলিল—“খোদাতালাকে ধন্যবাদ, এতদিনের পর আমরা জিনিদৈত্যের দেশে । পেপছিয়াছি।” শাহজাদা বিস্মিত হইয়া বলিলেন—“কই?” e মবোরক বলিল—”এই যে,-এত আলো জনলিতেছে, এত লোকজন যাতায়াত কার झाछथानौ ॥”