পাতা:গল্প-গ্রন্থাবলী (প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়) তৃতীয় খণ্ড.djvu/৪০২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


"為8 গলপ-গ্রন্থাবলী মন্ত্রী বলিলেন, “আচ্ছা, তবে রাজাকে এ কথা জিজ্ঞাসা করি।” রাজা সত্যবান এ প্রস্তাব শুনিয়া বলিলেন, “ঠিক কথা বলেছ। তুমি গেলে এ রাজ্য চালায় কে ? তা বেশ ত, চড়ামণিই যাক। চপার সঙ্গে ছেলেবেলা থেকেই ওর ভাব —দটিতে ভাইবোনের মত খেলা করেছে। ও নিশ্চয় খুব ভাল পারই আনবে।” চড়ামণি রাজাজ্ঞা পাইয়া, ঢপার জন্য বর খুজিতে বাহির হইল। দেশ দেশান্তর ঘরিয়া, একজন আদশ মুখের অনুসন্ধান করিতে লাগিল। অনেক দিন কাটিল, কিন্তু মনের মতনটি কাহাকেও পাইল না। অবশেষে একদিন এক বনের মধ্যে দিয়া যাইতে যাইতে, চড়ামণি দেখিল, গলে যজ্ঞোপবীত, সন্দর সংগঠিত দেহ এক যবেক বক্ষের শাখায় বসিয়া সেই শাখারই মলদেশ কৰ্ত্তন করিতেছে। দেখিয়া চড়ামণি উল্লসিত হইয়া উঠিল। মনে মনে বলিল, “হাঁ— এই উপযুক্ত পাত্র বটে। রাজকন্যের জন্যে বর খুজতে বেরিয়ে অনেক মখেই দেখলাম, কিন্তু এটির মত কেউ নয়।” যুবককে সম্বোধন করিয়া বলিল, “ওহে, এস এস নেমে এস ;–একটা কথা বলি শোন ।” _ যবেক নামিয়া আসিয়া চড়ামণির পানে হাঁ করিয়া চাহিয়া রহিল। চড়ামণি জিজ্ঞাসা করিল, “গাছের ডালটি কাটছিলে কেন ?” “আমার কাঠের দরকার।" “কাঠ কি হবে ?” “কাঠ আবার কি হয় ? উননে দিয়ে রান্না করতে হয় " চড়ামণি বলিল, “হে হে—তাও ত বটে! তোমার নাম কি হে ছোকরা ?” যবেক বলিল, “কালিদাস।” "কালিদাস ? বেশ বেশ। কি জাত ? গলায় ত পৈতে দেখছি, ব্রাহ্মণ বুঝি ?” “এজ্ঞে ।” “কি কর ? পড়াশনো কিছু কর?” “এজ্ঞে পাঠশালায় একবার ভত্তি হয়েছিলাম। গরমশাই বন্ড মারে তাই ছেড়ে झिझछि ।” চড়ামণি বলিল, “বেশ বেশ। তোমাদের বাড়ী কোথায় ? বাপের নাম কি ?” উত্তরে যবেক নিজ পরিচয় দিল। নিকটেই গ্রামে বাড়ী, বাল্যকালেই পিতৃমাতৃবিয়োগ হইয়াছে, লেখাপড়া সে কিছই শেখে নাই—শিখাইবেই বা কে ? গ্রামের লোকের গরব চরাইয়া দিনপাত করে। বিবাহ হয় নাই। চড়ামণি মনে মনে বলিল, “ছেলেটির যে রকম ভাল চেহারা, একে যদি আমি রাজপত্র বলে’ চালিয়ে দিই ত হঠাৎ কেউ কিছল সন্দেহ করবে না।” যবেক বলিল, “এই কথা জিজ্ঞাসা করবার জন্যে গাছ থেকে আমায় নামালে ? না, আর কোনও কথা আছে ?” চড়ামণি বলিল, “আছে। বিয়ে করবে ?" “কাকে ?” “আমাদের রাজার মেয়েকে *ৈ “ब्राछान्न ८घटन्न ? उा अन्न झट्व ना । आभब्रा किन्छू कूलौन; कि नाव ?” “ধন দৌলৎ ঢের পাবে। যত চাও।” ববেক একটা ভাবিল। ভাবিযা বলিল, “সে যেন হল। কিন্তু মেয়েটি কেমন ?” "পরমা সন্দেরী। রাজার মেয়ে, বঝেছ না ! গায়ের রঙটি যেন চাঁপা ফলের মত । মুখখানি যেন পণিমের চাঁদ। যেমন চোখ, তেমনি নাক তেমনি ঠোঁট—একবারে পল্পী হে পরী ! করবে বিয়ে ?”