পাতা:গীতবিতান.djvu/৪৯৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৩৮১
প্রেম

২৭৪

আমার  ভুবন তাে আজ হল কাঙাল, কিছু তাে নাই বাকি,
ওগাে নিঠুর, দেখতে পেলে তা কি।
তার  সব ঝরেছে, সব মরেছে, জীর্ণ বসন ওই পরেছে—
প্রেমের দানে নগ্ন প্রাণের লজ্জা দেহো ঢাকি।
কুঞ্জে তাহার গান যা ছিল কোথায় গেল ভাসি।
এবার তাহার শূন্য হিয়ায় বাজাও তােমার বাঁশি।
তার  দীপের আলাে কে নিভালো,  তারে তুমি জ্বালো জ্বালাে—
আমার আপন আঁধার আমার আঁখিরে দেয় ফাঁকি।


২৭৫

যখন  এসেছিলে অন্ধকারে
চাঁদ ওঠে নি সিন্ধুপারে।
হে অজানা, তােমায় তবে  জেনেছিলেম অনুভবে—
গানে তােমার পরশখানি বেজেছিল প্রাণের তারে।
তুমি  গেলে যখন একলা চলে
চাঁদ উঠেছে রাতের কোলে।
তখন দেখি, পথের কাছে  মালা তােমার পড়ে আছে—
বুঝেছিলেম অনুমানে এ কণ্ঠহার দিলে কারে।


২৭৬

এ পথে আমি-যে গেছি বার বার, ভুলি নি তাে এক দিনও।
আজ কি ঘুচিল চিহ্ন তাহার, উঠিল বনের তৃণ।
তবু মনে মনে জানি নাই ভয়,  অনুকূল বায়ু সহসা যে বয়—
চিনিব তােমায় আসিবে সময়,  তুমি যে আমায় চিন।
একেলা যেতাম যে প্রদীপ হাতে নিবেছে তাহার শিখা।
তবু জানি মনে তার ভাষাতে ঠিকানা রয়েছে লিখা।
পথের ধারেতে ফুটিল যে ফুল  জানি জানি তারা ভেঙে দেবে ভুল—
গন্ধে তাদের গোপন মৃদুল  সঙ্কেত আছে লীন।