পাতা:গীতবিতান.djvu/৮৬৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।
৭৩৭
শ্যামা।

হেসে চলে যায় দলে ভাসিয়ে ভেলা।
দুর্লভ ধনে দুঃখের পণে লও গাে জিনি
হে গরবিনী।
ফাগুন যখন যাবে গাে নিয়ে ফুলের ডালা,
কী দিয়ে তখন গাঁথিবে তােমার বরণমালা
হে বিরহিণী।
বাজবে বাঁশি দূরের হাওয়ায়,
চোখের জলে শূন্যে চাওয়ায়
কাটবে প্রহর—
বাজবে বুকে বিদায়পথের চরণ ফেলা দিনযামিনী,
হে গরবিনী।
শ্যামা। ধরা সে যে দেয় নাই, দেয় নাই, 
যারে আমি আপনারে সঁপিতে চাই—
কোথা সে যে আছে সঙ্গোপনে
প্রতিদিন শত তুচ্ছের আড়ালে  আড়ালে আড়ালে।
এসাে মম সার্থক স্বপ্ন,
করাে মম যৌবন সুন্দর,
দক্ষিণবায়ু আনাে পুষ্পবনে।
ঘুচাও বিষাদের কুহেলিকা,
নব প্রাণমন্ত্রের আনাে বাণী।
পিপাসিত জীবনের ক্ষুব্ধ আশা
আঁধারে আঁধারে খােঁজে ভাষা—
শূন্যে পথহারা পবনের ছন্দে,
ঝ’রে-পড়া বকুলের গন্ধে।

সখীদের নৃত্যচর্চা, শেষে শ্যামা সজ্জা-সাধন। এমন সময়


বজ্রসেন ছুটে এল। পিছনে কোটাল


কোটাল।  ধর্ ধর্, ওই চোর, ওই চোর।