পাতা:গীতা-গ্রন্থাবলী (উপেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়).djvu/১২৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ᏱᏱbr শ্ৰীমদ্‌গীতাসারঃ । সদা প্রকাশতে হাত্মা পটে দ্বীপে জলন্ধিব। জ্ঞানমূৎপদ্যতে পুংসাং ক্ষয়াৎ পাপস্ত কৰ্ম্মণ: ৷ যথাদশতলপ্রথ্যে পশ্যতাত্মানমাত্মনি । ইন্দ্ৰিবাণীন্দ্রিয়ার্থীংশ্চ মহাভূতানি পঞ্চকৰ্ম্ম ॥ ৭ । মনোবুদ্ধিরহঙ্কারমব্যক্তং পুরুষত্বথা । প্রসংপানপরাব্যাপ্তেী বিমুক্তে বন্ধনৈভবেৎ ৷ ৮ ৷৷ ইন্দ্রিয়গ্রামমথিলং মনসাভিনিবেশ্ব চ। মনশ্চৈবাপ্যহঙ্কারে প্রতিষ্ঠাপ্য চ পাণ্ডব ॥ ৯ । অহঙ্কণরং তথা বুদ্ধে বুদ্ধিঞ্চ প্রকতাৰপি । প্রকৃতিং পুরুষে স্থাপ্য পুরুষং ব্রহ্মণি চীসেৎ ॥১০ ॥ নবদ্বারমিদং গেষ্টং তিক্ষণাং পঞ্চসাক্ষিকম্। ক্ষেত্ৰজ্ঞাধিষ্ঠিত বিদ্বান লে৷ ৱেদ স বর: কবি ॥ ১১। অশ্বমেধসহস্রাণি বাজপেয়শতানি চ । জ্ঞানযজ্ঞস্ত সৰ্ব্বণি কলাং নার্হস্তি ঘোডশম্ ॥ ১১ ॥ উজ্জ্বল প্রদীপের দ্যায় যখন অত্মা চিন্তপটে প্রকাশ পায়, তখনই পুরুষের পাপকৰ্ম্ম ক্ষয় হইয়া জ্ঞান সমুৎপন্ন হয় ॥ ৬ ॥ যেমন আদর্শতলে দৃষ্টি করিলে আপনাকে দেখিতে পায়, সেইরূপ আত্মাতে দৃষ্টি করিতে পারিলেই পঞ্চ মহাভূতের দর্শন হইয়া থাকে । মন, বুদ্ধি, অহঙ্কার ও অব্যক্ত পূক্ষ এই সকলের প্রসংখ্যান দ্বারা বন্ধন হইতে বিযুক্ত হইতে পারে। ৮ ॥ মনে ইন্দ্রিয় সকলের অভিনিবেশ করিয়া মনকে অহঙ্কারে স্থাপিত করিবে এবং অহঙ্কারকে বুদ্ধিতে, বুদ্ধিকে প্রকৃতিতে, প্রকৃতিকে পুরুষে এবং পুরুষকে পরত্রহ্মে বিলীন করিতে হইবে। এইরূপ করিতে পারিলেই “অহং ব্রহ্ম” এইরূপ জ্ঞানজ্যোতিঃ প্রকাশ পায়, তখনই সেই পুরুষ মুক্ত হইয়া থাকে ॥৯-১ নবদ্বারবিশিষ্ট গুণত্রয়ের আশ্রয় পঞ্চভূতাত্মক আত্মাধিষ্ঠিত দেহকে বে ੋਜੈ। ব্যক্তি জানিতে পারেন, তাহাকে মহাকবি বলা যায় ১১। শত অশ্বমেধ এবং সহস্র বাজপেয় এই জ্ঞানযজ্ঞের ষোড়শাংশ ফলও প্রদান করিতে পারে না। ১২ ॥