পাতা:গোপালতাপনী.pdf/৪০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

পূৰ্ব্ববিভাগঃ গোপালতাপনী। * S পঢ়াৎ, ‘সুরভি, কামধেনু’, ‘বিদ্যাঃ, চতুৰ্দশ, ইতি প্রাচুরকার্য। “তৰ্ভুক্তরাং, স্বাহাপদাৎ, ‘স্ত্রীপুংসাদিচ, স্ত্রীপুৰুষ ক্লীৰংচ, ‘সকলং, স্থাবর জঙ্গমং প্রাদ্ভৱকাৰ্যম্ অভ্যাস স্তৃতীয়োপনিষৎ সমাপ্তাৰ্থ । ইতি পদং পঞ্চপদস্ত সৃষ্টি সমাপ্তার্থঃ ॥ ২৮ ॥ তদনন্তর আমি অনুরক্ত মনে তাষ্ঠীকে প্রণাম করিলে তিনি আমাকে সৃষ্ট্যর্থ নিজ স্বরূপভূত অষ্টদশক্ষর মন্ত্র প্রদান করিয়া অন্তৰ্ছিত হইলেন । তৎপরে আমি তদণজ্ঞ বশবৰ্ত্তী” হইয়া জগৎ সৃজনাৰ্থ ইচ্ছুক হইলে তিনি পুনর্বার অামার অগ্রে অষ্টাদশাক্ষর মন্ত্রের অক্ষরেতে ভবিষ্যৎ জগৎ প্রকাশ করিবার নিমিত প্রাহুভুত হইলেন। অনন্তর আমার ভবিষ্যৎ জগৎ গোচরীভুত হইলে পূৰ্ব্বোক্ত অষ্টাদশাক্ষর মন্ত্রে বৃষ্টি করিতে প্রবৃত্ত হই । ককার হইতে জল, লকার হইতে পৃথিবী, ঈকার হইতে অগ্নি এবং অনুস্বার হইতে চন্দ্র সৃষ্টি করিলাম অর্থাৎ ইহাদের সম্পতি রূপ ক্লীe/বীজ হইতে জল, অগ্নি ও চন্দ্রের সৃষ্টি হইল । তদনন্তর কৃষ্ণায় এই পদ ছইতে আকাশ সৃজন করিলাম এবং আকাশ হইতে অর্থাৎ চিদাকাশ হইতে শব্দ সমূহের বোধ সৌকর্য্যাৰ্থ গোবিন্দায় পদ দ্বারা বায়ু সৃষ্টি করিলাম। তৎপশ্চাৎ গোপীজন বল্লভায় এই দুই পদ হইতে কামধেনু ও চতুর্দশ বিদ্যার প্রাদুর্ভাব হইল । এবং স্বাছা হইতে স্ত্রী, পুরুষ, ক্লীব ও স্থাবর জঙ্গম প্রকাশ করিলাম। দ্বিরুক্তি তৃতীয়োপনিষৎ সমাপ্তি জন্য । ইতি পদ, পঞ্চপদ মন্ত্রের সৃষ্টি সমাপ্তি নিমিত্ত ॥ ২৮ ৷৷ . পরন্তু কেবল সৃষ্টি সামর্থ্য প্রদই যে এই মন্ত্র এমত নয় অপিতু ভগবান শঙ্করেরও জ্ঞান প্রদ হইয়াছে। যথা । ( এতস্যৈব যজনেনেতি ) --