পাতা:গোবিন্দ দাসের করচা.djvu/১১২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোবিন্দ দাসের করচা রায়ের নিকট হৈতে লইয়া বিদায়। ত্রিমন্দ নগরে প্রভু প্রবেশ করয় ॥ * বহুবৌদ্ধ বাদ করে ত্রিমন্দ নগরে। আসিয়া মিলিল সবে গৌরাঙ্গমুন্দরে ॥ বৌদ্ধগণ সহ প্ৰভু বিচার করিলা । ত্ৰিমন্দের রাজা আসি মধ্যস্থ হইলা ॥ বৌদ্ধগণ বিচারেতে পরাস্ত মানিল । পণ্ডিত দর্শক সবে হাসিতে লাগিল ॥ সবে বলে এ সন্ন্যাসী মানুষ ত নয়। যে বিচার কৈল তাহ কহনে না যায় ॥ বৌদ্ধগণের পতি রামগিরি রায় । প্ৰণমিয়া বলে পথ দেখাও আমায় । তুমি ত মানুষ নহ নবীন সন্ন্যাসী । থাকিতে তোমার সহ বড় ভালবাসি ॥ পাষণ্ডের শিরোমণি ছিলাম সংসারে । কৃপাকরি ভক্তিমাৰ্গ দেখাও আমারে। হাসিয়া চৈতন্য প্রভু কৃপা করি কয়। মাথার ঠাকুর তুমি রামগিরি রায় । হরি বলি পুলকিত হয় যেই জন । মাথার ঠাকুর সেই এই ত সাধন ॥ শুনিয়া প্রভুর বাণী রামগিরি রায় । অমনি আছাড় খেয়ে পড়িল ধরায় ॥ পড়িয়া চরণ তলে রামগিরি কয়। নরাধমে কি বলিলে তুমি দয়াময় ॥

  • দক্ষিণের যে বিবরণ কবিরাজ গোস্বামী দিয়াছেন, তাহা নিতান্ত অসম্পূর্ণ। পুরা ও গোদাবরী তাঁর পর্য্যন্ত ঘটনা তিনি পার্শ্বচরদিগের নিকট শুনিয়াছিলেন । রামানদের সঙ্গের বিচার তিনি দামোদর স্বরূপের করচা হইতে সংগ্ৰহ করিয়াছিলেন। (চৈ,চ, ৮ম পঃ ১৯৩) কিন্তু দক্ষিণপথ ভ্রমণ সম্বন্ধে “কহিতে না পারি कथ! यथ। श्रश्ङ्गम ।“ (', B, भ१] •२ १: s ) বলিয়। দুঃখ প্রকাশ করিয়াছেন। চৈতন্য-চরিতামৃতে ত্রিমন্দ স্থলে ত্রিমল্প ।

সৰ্ব্বজীবে থাকি তুমি দেখিছ সকল। কৃপা করি রাঙ্গাপায় দেহ মোরে স্থল ৷ রামগিরি পাষণ্ডের ভক্তি উপজিল । ইহা হেরি প্রভু মোর আনন্দে পূরিল। পণ্ডিতের শিরোমণি যত বৌদ্ধগণ । রামগিরি পথে সবে করিলা গমন ॥ নবীন সন্ন্যাসী করে বাদীর নিরাশ । ইহা হেরি রামানন্দ চাহে চারি পাশ ॥ বিচার করিতে শেষে হয়ে অভিলাষী । টুকিরামতীর্থ আসে তুঙ্গভদ্রাবাসী ৷ অহঙ্কারে সদামত্ত পণ্ডিতাভিমানী । নাহি বুঝে ভক্তিমাৰ্গ শুষ্কতর্কে জ্ঞানী ॥ বড়ই পণ্ডিত বটে ঢুণিরাম হয়। বিচার করিতে কিন্তু পায় বড় ভয় ॥ ঢুণ্টিবাম স্বামী গিয়া করিতে বিচার। অএফেলি ধরণী লোটায় বার বার ॥ প্রভু কহে শুন শুন ঢুণিরাম স্বামী। তোমার সহিত তর্কে হারিলাম আমি ৷ জয় পত্র লিখে আমি দেই সঙ্গোপনে । হারিল চৈতন্য এবে তোমার সদনে ॥ বাণীর কৃপায় তুমি পণ্ডিত গোসাই। কণর সাধ্য তর্ক শাস্ত্রে জিনে তব ঠাই ॥ দ্যায় সাংখ্য পাতঞ্জল বেদান্ত দর্শন । সৰ্ব্ব শাস্ত্রে অধিকারী তুমি গো স্বজন ॥ মুরথ সন্ন্যাসী মুহি কিছু নাহি জানি। বার বার তোমার নিকটে হারি মানি ॥ আগেকার ঢুটি ১ হতে তুমি স্থপণ্ডিত । তোমার পাণ্ডিত্য হয় ভুবনে বিদিত ॥ এত বলি ঢুণিরাম করিলা বিদায়। যাইতে না চায় ঢুণ্টি চারিদিকে চায়।

  • "চুণ্টি" সম্ভবতঃ নাম নহে—উপাধি ।