পাতা:গোবিন্দ দাসের করচা.djvu/১২৯

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


8e গোবিন্দ দাসের করচা যুধিষ্ঠির নামে এক সাধক ব্রাহ্মণ । বৈষ্ণবের চূড়ামণি সাধু আচরণ। বিপ্র করে এই ক্ষেত্রে বন্দন পূজন । নিত্য গীত পড়ি করে অশ্র বিমেচন ॥ মুর্থ বিপ্ৰ গীত পড়ে সবে উপহাসে । গ্রাহ নাহি করে বিপ্র তাই ভাল বাসে ॥ কণর কথা নাহি মানে গীত অধ্যয়নে । হৃদয় নিবেশ করি পড়ে নিরজনে ॥ যতক্ষণ পড়ে গীত কান্দয়ে ব্রাহ্মণ । অশ্রু দেখি প্রভুর গলিয়া গেল মন ॥ প্রভু বলে কেন কাদ ব্রাহ্মণ ঠাকুর । বিপ্র বলে গীত পড়ি আনন্দ প্রচুর ॥ অৰ্জ্জুনের রথে কৃষ্ণে দেখিবারে পাই । সেই লোভে গীত পড়ি সন্ন্যাসি-গোসাই ! প্রভু বলে কৃজ্ঞে তুমি পাও দরশন। তবে মোরে দয়া করি দেহ আলিঙ্গন ॥ তেমার সমান সাধু কভু দেখি নাই। তেমারে ভজিলে কৃষ্ণ দেখিবারে পাই ॥ ব্রাহ্মণ প্রভুর প্রতি একদৃষ্টে চায়। প্রতুর চরণতলে লোটাইলা কায় ॥ প্রতু কহে শুন শুন বিপ্র মহাশয় । এই কথা নাহি কবে যথায় তথায় ॥ বড় ভাগ্যবান তুমি সাধুশিরমণি। নিত্য দেখা দেন কৃষ্ণ তোমারে আপনি ॥ বিপ্র বলে তুমি কৃষ্ণ কৃতাৰ্থ করিলা । এত বলি পদযুগ সাপটি ধরিলা ॥ বিদায় হইতে প্রভু ব্রাহ্মণে বলিলা । সব ছাড়ি প্রভু সঙ্গে ব্রাহ্মণ ধাইলা ॥ ব্রাহ্মণে বিদায় করি শচীর নন্দন । ঋষভ পৰ্ব্বত তবে করিলা গমন । ঋষভ পৰ্ব্বতে থাকে পরানন্দপুরী। তাহারে দেখিতে প্ৰভু হৈল আগুসারী। পুরীসহ কৃষ্ণকথা বহুত করিলা । অতঃপর রামনাথ নগরে আইলা ॥ রামনাথ নগরেতে রামের চরণ । হেরিয়া করিলা প্ৰভু অশ্রু বরষণ ॥ পুলকে পূরিত দেহ কঁাপিতে লাগিল । অজ্ঞান হইয়া প্ৰভু ভূমিতে পড়িল । পাদপদ্ম পরশিয়া মোর দয়াময় । শিহরি শিহরি উঠে ঘনশ্বাস বয় ॥ পাদপদ্ম নিরখিয়া শচীর নন্দন। আর আর তীর্থে চলে করিতে দর্শন ॥ রামেশ্বর তীর্থে গিয়া তথি স্নান করি। শিব দরশন করে মোর গৌরহরি ॥ রামেশ্বর নামে শিব আশ্চৰ্য্য গঠন। i শিব দেখি মহাপ্রভু করিলা বন্দন ॥ বহুতর সাধু সেথা থাকে সৰ্ব্বক্ষণ । একে একে সব সাধু আইলা তখন ॥ প্রভূরে দেখিয়া এক পণ্ডিত উদাসী । বিচার করিতে বড় হৈলা অভিলাষী ॥ প্রভূ বলে বিচার না করিবারে চাই। হইলাম বিচারে পরাস্ত তব ঠাই ॥ আশ্চৰ্য্য বিনয় তার হেরিয়া নয়নে । অজ্ঞান হইয়া দ্যাসী ভাবে মনে মনে ॥ প্রভু বলে কি ভাবিছ সন্ন্যাসী-ঠাকুর। আতাল পাতাল কথা সব কর দুর। আতাল পাতাল দূর করি ভক্তি ভরে। কৃষ্ণগুণ গাও ভাই বিশুদ্ধ অস্তরে । ভজ কৃষ্ণ কহ কৃষ্ণ লহু কৃষ্ণ নাম। করিয়া কৃষ্ণের নাম যাও নিত্য ধাম ॥ কৃষ্ণ বিনা গতি নাই এই ত মন্ত্রণা। বারংবার যাতায়াত পাইবে যন্ত্রণ ॥