পাতা:গোবিন্দ দাসের করচা.djvu/১৩৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


ՀԵ গোবিন্দ দাসের করচা যোগী বলে তুমিই আমার কৃষ্ণ হবে। পুনঃ আসি প্ৰভু মোরে দেখা দিবে কবে । প্রভু বলে এহু বাণী না কহিও আর । বৃন্দাবনপতি কৃষ্ণ এই ত বিচার ॥ ভক্তি বিনা কৃষ্ণ তত্ত্ব না হয় উদয় । ভক্তিডোরে বাধা কৃষ্ণ জানিহ নিশ্চয় ॥ যোগী বলে বুঝেছি তোমার ভারি ভুরি । চক্ষে ধুলা দাও কেন করিয়া চাতুরী। ভক্তিডোরে আজি আমি তোমারে বাধিব খড়ম দুখানি আজি কাড়িয়া লইব ॥ ঈশ্বর ভাৱতী তবে এতেক বলিয়া । জোরে টানাটনি করে খড়ম ধরিয়া ॥ প্রভু বলে কৃষ্ণে তুমি করহ বিশ্বাস । আজি হৈতে তব নাম হইল কৃষ্ণদাস ॥ . এত বলি চলে প্ৰভু ছাড়ি চগুপুর। যোগিবর সঙ্গে সঙ্গে আসে বহুদূর ॥ . হাসিয়া যোগীরে প্রভু করিল। বিদায় । প্রণাম করিয়া তবে যোগিবর যায় ॥ দুই দিবা রাত্র যায় পৰ্ব্বত ভেদিয়া । তার মধ্যে গ্রাম পুরী না পাই খুজিয়া ॥ বড়ই দুর্গম পথ চলিতে না পারি। কেবল কদম্বরুক্ষ দেখি সারি সারি ॥ কদম্বের গাছ দেখি প্ৰভু মোরে বলে । মোর কৃষ্ণ কেলি করে এই বৃক্ষ তলে । এত বলি কান্দিয়া আকুল প্ৰভু মোর। ছলিতে ছলিতে চলে কৃষ্ণ প্রেমে ভোর ॥ চলিতে চলিতে দেখি ক্ষুদ্র জলাশয় ॥ সেইখানে এক ব্যাঘ্র দেখে হর ভয় ॥ ইঙ্গিত করিয়া ব্যন্ত্র প্রভুরে দেখাই । ভালমনা প্রভুমুখে শুনিতে না পাই ॥ জলপান করিতেছে ব্যাঘ্র সেই স্থানে। প্রভুপার্থে গুড়ি গুড়ি যাই সাবধানে ॥ চলিলা ডাইনে গোর ব্যাঘ্র রাখি বামে আবেশে অবশ অঙ্গ মত্ত হরিনামে ॥ ফিরে না চাইল ব্যাঘ্র মোদিগের প্রতি । পিছনে তাকাই আর চলি দ্রুতগতি ॥ মোর ভাবগতি দেখে ঈষৎ হাসিয়া । বলে প্ৰভু ভয় কর কিসের লাগিয়া ॥ হরিনাম বলে নাহি রহে যমভয় । ক্লঞ্চ কৃষ্ণ বলি ডাক না কর সংশয় ॥ এই কথা শুনি মোর শক্তি সঞ্চারিল। শরীরের বল যেন দ্বিগুণ বাড়িল ৷ চলিতে চলিতে এক ক্ষুদ্র পল্লীপাশে । উপনীত হইলাম আশ্রমের আশে ॥ অতি অজ্ঞাত পল্পী সব দুঃখী অধিবাসী। সেইখানে গিয়া বসে নিমাই সন্ন্যাসী ৷ পৰ্ব্বতে বেষ্টিত পল্লী দেখিতে সুন্দর। ভিক্ষণ লাগি যাই আমি গ্রামের ভিতর ॥ বড়ই দরিদ্র হয় একই ব্রাহ্মণ । ভিক্ষা করি কোনরূপে কাটায় জীবন ॥ ভিক্ষা করিবারে আমি তার গৃহে যাই । বিপ্র বলে ক্ষণেক অপেক্ষা কর ভাই ॥ কিছুক্ষণ বৈস এথা ফিরে না যাইবে । অতিথি ফিরিলে মোর নরক হইবে ॥ ভিক্ষণ মাগি এনে দিব ভিক্ষা তব ঠাই । কিছুকাল এখানে অপেক্ষ কর ভাই ॥ এত বলি সেই বিপ্র ভিক্ষায় চলিল । দুটা নারিকেল আনি মোরে ভিক্ষণ দিল ভিক্ষ আনি প্রভূরে যোগাই বৃক্ষতলে । ফলভোগ লাগাইলা প্রভু কুতুহলে। ব্রাহ্মণের কথা শুনি মোর গোর রায় । সন্ধ্যার সময়ে বিপ্রে দেখিবারে যায় ॥ ব্রাহ্মণ ব্রাহ্মণী ফুট থাকে সেই স্থানে। গোপালের সেবা লাগি ভিক্ষণ মেগে আনে । আপনার ঘরে বিপ্র প্রভূরে দেখিয়া । জোড়হন্তে फ्राशू সম্মুখে আসিয়া।