পাতা:গোবিন্দ দাসের করচা.djvu/১৩৮

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোবিন্দ দাসের করচ θώ বিপ্র বলে কি দিয়া পুজিব অতিথিরে। কেমনে বলিব প্রভু যাহ তুমি ফিরে ॥ গেপোলের সেবা লাগি আছি এইখানে । ভিক্ষা করে সেবা করি আমরা দুজনে ॥ আসন নাহিক মোর কি দিব বসিতে । ব্রাহ্মণী বলিলা বিপ্র মাথা দা ও পেতে ॥ বিদ্যুত খেলিছে দেখ অতিথির পায় । তুলসী আনিয়া দেহ অতিথির গায়। তাড়াতাড়ি বিপ্র তবে তুলসী আনির । প্রভুর চরণে দিতে গেলেন ধাইয়া ॥ হাত ধরি বিপ্রে তবে চৈতন্য বুঝায়। তুলসী অর্পণ কর গোপালের পায় ॥ এই কথা শুনি বিপ্র কান্দিতে লাগিল । অমনি দয়াল প্রভু তারে আলিঙ্গিল | প্রভূ বলে তুমি বিপ্র বড় ভাগ্যবান । তব গৃহে বিরাজেন নিজে ভগবান ॥ কি কব ভাগ্যের কথা ঠাকুর তোমার। গোপাল তোমার গৃহে করেন বিহার ॥ সাক্ষাৎ কমল হন তোমার ঘরণা । মনে বিচারিয়া তুমি দেখহ আপনি । বিপ্র বলে ভাগ্য মানি তোমার কৃপায় । সামান্ত মানুষ তুমি নহ দয়াময়। তব অঙ্গে সৌদামিনী খেল। করে কেন । তব দেহে পদ্মগন্ধ অনুমানি হেন ॥ " তুমি যদি ভগবান নহ দয়াময়। তবে কেন তব অঙ্গে পদ্মগন্ধ বয় ॥ মোর মাথে তুলে দেহ তোমার চরণ। এত বলি মাথা পাতি দিলেন ব্রাহ্মণ ॥ এই বাক্যে দর্শনেতে রদনা কাটিয়া । দয়াল চৈতন্তদেব গেলেন পিছিয়া ॥ ব্যাকুল হুইয়া বিপ্র ব্রাহ্মণীর সাথে। পাইয়া গিয়া পদতলে নোয়াইলা মাথে । ση বাহু পশারিয়া প্ৰভু ব্রাহ্মণে তুলিলা । তারপরে ভক্তিভরে গান আরম্ভিলা ॥ ব্রাহ্মনের গৃহ যেন হৈল বৃন্দাবন। . হরিনাম শুনিবারে আসে গ্রাম্যজন। হরেকৃষ্ণ হরেকৃষ্ণ কৃষ্ণ কৃষ্ণ হরে হরে । হরেরাম হরেরাম রাম রাম হরে হরে ॥ দয়াল চৈতন্য এই গান আরম্ভিল। সেই সঙ্গে শ্রোতা সব মাত্তিয়া উঠিল। নাম শুনি গ্রাম্যলোক প্রভুর বদনে। গড়াগড়ি দেয় সবে প্রভুর চরণে ॥ গাইতে গাইতে গান রাত্রি পোহাইল । প্রাতঃকালে মোর প্রভু ৰিদায় লইল । বিদায় লইয়া যবে প্রতু বাহিরায়। তাকাইয়া রহে লোক পুতুলের প্রায়। ইঙ্গিত করিলা মোরে গোবিন বলিয়া । কাধে তুলি লইলাম তখনি খড়িয়া । কাণ্ডার দেশের কাছে শোভে নীলগিরি। অপরাহ্লে সেইখানে যাই ধারি ধারি ॥ কিবা শোভা পায় আহা নীলগিরিরাজে। ধ্যানে মগ্ন যেন মহাপুরুষ বিরাজে ॥ কত শত গুহা তার নিম্নে শোভা পায় । আশ্চৰ্য্য তাহার ভাব শোভিছে চুড়ায় ॥ বড় বড় বৃক্ষ তার শিরে আয়োহিয়া । চামর ব্যজন করে বাতাসে দুলিয়া ॥ ঝড়ঝড় শব্দে পড়ে ঝরণার জল । তাহা দেখি বাড়িল মনের কুতুহল । , পৰ্ব্বতের নিয়ড়েতে ঘুরিয়া বেড়াই। নবীন নবীন শোভা দেখিবারে পাই ॥ কতশত লতা বৃক্ষে করিয়া বেষ্টন। আদরেতে দেখাইছে দম্পতী-বন্ধন ॥ ময়ুর বসিয়া ডালে কেক রব করে। নানা জাতি পক্ষী গায় সুমধুর স্বরে।