পাতা:গোবিন্দ দাসের করচা.djvu/১৬৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


গোবিন্দ দাসের করচা ভিক্ষার লাগিয়া যুহি ফিরি ঘুরে দ্বারে। হেন বাক্য আর কছু নকহ আমারে। কৃঞ্চ কৃষ্ণৰল সদা বিশ্বাস করিয়া। ’ ককেতে বিশ্বাস কৃষ্ণ দিবে মিলাইয়া। ’ চিদানন্দ ঘন সেই পরাৎপর হরি। ভাব তার পাদপদ্ম ভবাৰ্ণবে তরি । প্রেমভক্তি সহ ভাব হরির চরণ । অবষ্ঠ তোমারে তিনি দিবেন দর্শন ॥ বড়ই দয়াল হরি ভক্ত জন প্রতি । চিন্তা কর র্তারে তিনি অগতির গতি । এত বলি ভৰ্গদেবে প্রভু পরশিল । অমনি ভর্গের দেহ পরিত্র হইল ॥ । জোড়হাতে দাড়াইয়া ভৰ্গদেব চায় । চরিতার্থ হয়ে শেষে লইল বিদায় । ভর্গসহ ছিল আর যতেক সন্ন্যাসী । প্রভুর সম্মুখে সবে দাড়াইল আসি ॥ একে একে প্রভুর চরণে প্ৰণমিল । মিষ্ট বাক্যে প্রভু সবে বিদায় করিল ॥ ভৰ্গদেব চলি গেলা দক্ষিণ বিভাগে । প্রভু নীলাচলে যাত্রা করে অনুরাগে ৷ মুহি রামানন্দ আর গোবিন্দ চরণ। নৰ্ম্মদার ধারে করি সেদিন যাপন ॥ পরদিন নৰ্ম্মদার ধারে ধারে যাই । দেহদ নগরে গিয়া সকলে পৌছাই ৷ কিছু আটা আনিলাম মুহি ভিক্ষা করি । রুটি করি ভোগ দেয় প্রভু গৌর হরি ॥ রজনী কাটাই মোরা দোহুদ নগরে । বৃক্ষতলে গোরাচাদ হরি ধ্বনি করে ॥ প্রভাতে উঠিয়া কুক্ষী নগরেতে যাই । অনেক বৈষ্ণব এথা দেখিবারে পাই ॥ যথা যাই তথা দেখি তুলসী কানন । গ্রাম্য লোক মাত্রে দেখি কৃষ্ণ পরায়ণ ॥ | i i 이어 সন্ধ্যাকালে সব লোক হরিধ্বনি করে। ইহা দেখি প্ৰভু মোর আনন্দে শহরে ৷ এই স্থানে থাকে এক দরিদ্র বাহ্মণ । তার ঘরে অাছে এক লক্ষ্মীজনাৰ্দ্দন । ভক্তি সহ পূজে বিপ্র লক্ষ্মীজনাৰ্দ্দনে । ইহ শুনি প্রভু যায় তাহার ভবনে ॥৪ আতিবিথি , করে বিপ্র প্রভূরে দেখিয়া । বহু অভ্যর্থনা করে অতিথি ভাবিয়া । বিপ্রবলে আমি হই দরিদ্র ব্রাহ্মণ । আমার ভবনে কেন কৈলা পদার্পণ ॥ সন্ন্যাসীর সেব। মুই করিপ কেমনে । ধৰ্ম্ম নষ্ট হৈল বুঝি আমার ভবনে ॥ প্রভু বলে কোন চিন্ত না কর ঠাকুর । যার স্বষ্টি তিনি পাদ্য দিবেন প্রচুর ॥ কণর জন্য কেবা ভাবে সকলি ত ভুল । সৰ্ব্বদা ভাবেন কৃষ্ণ শুন এষ্ট স্থল ॥ কৰ্ত্তা বলে পেতে দেই আমিহ সকলে । তবে কেন বন্ধুহীন খায় বৃক্ষ তলে ৷ বন মধ্যে ক্ষুদ্র কীটে কে দেয় অহার । তবে কেন বিপ্ৰ তুমি ভাব মিছে আর ॥ হেনকালে এক বৈশ্য ব্রাহ্মণের ঘরে । দুগ্ধ চিনি আট আনি যোগায় তাহারে ॥ বৈখ্য বলে শুন শুন ব্রাহ্মণ ঠাকুর । তোমার উপরে কৃপা হয়েছে প্রভুর ॥ স্বপ্নে দেখিয়াছি তব লক্ষ্মীজনাৰ্দ্দন। পায়স খাইতে চাহে আমার সদন ॥ নররূপে নারায়ণ তব গৃহে থাকে। স্বপ্নে নারায়ণ ইহা দেখালে আমাকে | গত রাত্রি যোগে ইহা দেখেছি স্বপনে। দুগ্ধ চিনি আনিয়াছি তাহার কারণে ॥ নারায়ণে দেহ বিপ্র পায়স রান্ধিয়া । এই কাও শুনি বিপ্র আকুল কান্দিয়া ॥

  • আতিবিধি-ব্যস্ততা প্রদর্শন।