পাতা:গোবিন্দ দাসের করচা.djvu/১৭৩

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


w急 গোবিন্দ দাসের করচা হরিদাস রামদাস আর কৃষ্ণদাস । ব্যগ্র হয়ে আসে সবে ঘন বহে শ্বাস ॥ জগন্নাথ দাস আর দেবকী নন্দন । ছোট হরিদাস আর গায়ক লক্ষ্মণ ॥ বিষ্ণুদাস পুরীদাস আর দামোদর। নারায়ণ তীর্থ আর দাস গিরিধব ॥ গিরি পুরী সরস্বতী অসংখ্য ব্রাহ্মণ । প্রভূরে দেখিতে সবে করে আগমন । রামশিঙা ৰাজাইতে বড়ই পণ্ডিত । বলরাম দাস আসে হয়ে পুলকিত । শত শত পণ্ডিত গোসাই দেখা দিল । আনন্দে আমার চিত্ত নাচিতে লাগিল । কেহ নাচে কেহ হাসে কে গান গায় । এক মুখে সে আনন্দ কহনে না যায় ॥ হাজার হাজার লোক প্রভুকে ঘেরিয়া । নাম আরম্ভিলা সবে আনন্দে মাতিয়া ॥ মুরারি মুকুন্দে প্ৰভু কোল দিতে গেলা । কাটুর নিকটে গুপ্ত ঢলিয়া পড়িলা ॥ সিদ্ধ কৃষ্ণদাস আসি প্রণাম করিল। হাত ধরি তুলি তারে প্রভু আলিঙ্গিল । একত্র মিলিয়। আর আর ভক্তগণ । প্রভুকে লইতে সবে করে আগমন । মাদল বাজায় যত বৈষ্ণবের দল । আননো করয়ে প্রভুর আঁখি ছল ছল ॥ কীৰ্ত্তন করয়ে যত বৈষ্ণব মিলিয়া । মাথা ঢুলাইয়া নাচে গোরা বিনোদিয়া । খঞ্জনে দেখিয়া প্রভু দিয়া হরি বোল । দুই বাহু পশারিয়া তারে দিলা কোল ॥ নাচিতে লাগিল গোরা বাহু পশারিয়া । সাৰ্বভৌম পদতলে পড়িল লুটিয়া ॥ হাত জোড়ি সাৰ্ব্বভৌম কহিতে লাগিল । তোমার বিরহ বাপ হৃদয়ে বিন্ধিল । বড় মূঢ় বলি তব বিরহ সহিয়া । এতদিন আছি মুছি পরাণ ধরিয়া ॥ দয়া করি পদতলে দল মোর দেহ । তবে ত জানিব প্ৰভু মোর প্রতি স্নেহ ॥ এত বলি সাৰ্ব্বভৌম গড়াগড়ি যায় । তাহারে তুলিয়া আলিঙ্গয়ে গোর রায় ॥ এইরূপে হরি ধ্বনি করিতে করিতে । প্রভূরে লইয়। সবে চলিল। পুরীতে ॥ শ্বেত নীল বিচিত্র পতাকা শত শত। গুড় গুডু শব্দ করি ডঙ্কা বাজে কত ॥ কেহ নাচে কেহ গায় আনন্দে মাতিয়া । এক দৃষ্টে কত লোক রহিল চাপিয়া । হেলিন্তে দুলিতে যায় শচীর দুলাল । মধুর মৃদঙ্গ বাজে শুনিতে রসাল ॥ হস্ত তুলি নাচিতে লাগিল গদাধর। রঘুনাথ দাস নাচে আর দামোদর। প্রভু পুছে রঘুনাথে আদর করিয়া । বড়ই আনন্দ পাই তোমারে দেখিয়া । রঘুনাথে কোল দিতে যান গোর রায় । রঘুনাথ পদতলে পড়িয়া লুটায় ॥ মাঘের তৃতীয় দিনে মোর গোর রায় । সাঙ্গোপাঙ্গ সহ মিলি পুরীতে পৌছায় ॥ অপরাহ্লে মহা প্ৰভু পুরীতে পৌছিলা । কোটি কোটি লোক তথা আসি বাকি দিলা ॥ ধূলাপায় প্রভু বহু লোক করি সাথ । হেরিলেন মন্দিরে প্রবেশি জগন্নাথ ॥ এক দৃষ্টে মহাবিষ্ণু দেখিতে দেখিতে। দর দর প্রেম অশ্রী লাগিল বহিতে ॥ একেবারে জ্ঞানশূন্ত হয়ে গোর রায় । অমনি আছাড় খেয়ে পড়িল ধরায় ॥ । এলাইল জটাজুট খসিল কেীপীন। ধূলায় ধূসর তন্তু যেন অতি দীন ॥ চারিদিকে করিধ্বনি করে ভক্তগণ । সাৰ্ব্বভৌম ক্রোড়ে তুলে করিলা ধারণ লোমাঞ্চিত কলেবর কদম্বের প্রায় । বহিতে লাগিল ঘৰ্ম্ম সহস্র ধারায় ॥