পাতা:গোরা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/৫৩১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটিকে বৈধকরণ করা হয়েছে। পাতাটিতে কোনো প্রকার ভুল পেলে তা ঠিক করুন বা জানান।


রাখিত না।

 সুচরিতার মনে এই-যে একটি চিন্তা চলিতেছিল পরেশ ঠিক সেই কথাটাই আপনি তুলিলেন; কহিলেন, “তােমাকে এবার ডাকতে পারি নি রাধে।”

 সুচরিতা জিজ্ঞাসা করিল, “কেন বাবা?”

 সুচরিতার এই প্রশ্নে পরেশ কোনাে উত্তর না দিয়া তাহার মুখের দিকে নিরীক্ষণ করিয়া রহিলেন। সুচরিতা আর থাকিতে পারিল না। সে মুখ নত করিয়া কহিল, “তুমি ভাবছিলে, আমার মনের মধ্যে একটা পরিবর্তন ঘটেছে।”

 পরেশ কহিলেন, “হাঁ, তাই ভাবছিলুম, আমি তােমাকে কোনােরকম অনুরােধ করে সংকোচে ফেলব না।”

 সুচরিতা কহিল, “বাবা, আমি তােমাকে সব কথা বলব মনে করেছিলুম, কিন্তু তােমার যে দেখা পাই নি। সেই জন্যেই আজ আমি এসেছি। আমি যে তােমাকে বেশ ভালাে করে আমার মনের ভাব বলতে পারব, আমার সে ক্ষমতা নেই। আমার ভয় হয়, পাছে ঠিকটি তােমার কাছে বলা না হয়।”

 পরেশ কহিলেন, “আমি জানি, এ-সব কথা স্পষ্ট করে বলা সহজ নয়। তুমি একটা জিনিস তােমার মনে কেবল ভাবের মধ্যে পেয়েছ, তাকে অনুভব করছ, কিন্তু তার আকারপ্রকার তােমার কাছে পরিচিত হয়ে ওঠে নি।”

 সুচরিতা আরাম পাইয়া কহিল, “হাঁ, ঠিক তাই। কিন্তু আমার অনুভব এমন প্রবল, সে আমি তােমাকে কী বলব। আমি ঠিক যেন একটা নূতন জীবন পেয়েছি, সে একটা নূতন চেতনা। আমি এমন দিক থেকে এমন করে, নিজেকে কখনাে দেখি নি। আমার সঙ্গে এতদিন আমার দেশের অতীত এবং ভবিষ্যৎ কালের কোনাে সম্বন্ধই ছিল না- কিন্তু সেই মস্তবড়াে সম্বন্ধটা যে কতবড়ো সত্য জিনিস আজ সেই উপলব্ধি আমার হৃদয়ের মধ্যে এমনি আশ্চর্য করে পেয়েছি যে, সে আর কিছুতে ভুলতে পারছি নে। দেখাে বাবা, আমি তােমাকে সত্য বলছি, আমি হিন্দু এ কথা আগে কোনােমতে

৫২১