বিষয়বস্তুতে চলুন

পাতা:গৌড়ের ইতিহাস (প্রথম খণ্ড).djvu/১৩৪

উইকিসংকলন থেকে
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

গৌড়ের ইতিহাস । ولا و لا তিস্তানদীর তীরে ঘোরতর যুদ্ধে 'ধৰ্ম্মপালকে পরাজিত করিয়া স্বীয় পুত্র গোবিন্দচন্দ্রকে রাজা করেম। এই সকল ঘটনার সঙ্গে বঙ্গাধিরাজ ১ম ধৰ্ম্মপালের কোন সংস্রব নাই। যখন এই সকল ঘটনা হয়, তখন বোধ হয় ২য় মহীপাল দেব গৌড়ের সিংহাসনে প্রতিষ্ঠিত ছিলেন । তৃতীয় রাজ্য—দেবপাল । ৮৩০ খৃঃ—৮৬৫ খৃঃ । ধৰ্ম্মপালের অনুজ বাকৃপালের দুই পুত্র, দেবপাল ও জয়পাল । কেহ কেহ বলেন, জয়পাল দেবপালের খুল্লতাত পুত্র ছিলেন। দেবপাল রাজসিংহাসন প্রাপ্ত হন। জয়পাল ভ্রাতার শাসনে থাকিয়া ভ্রাতার রাজ্যবিস্তারের সহায়তা করেন । প্রায় সমস্ত উত্তর ভারত জয়পালের বীরত্বে দেবপালের অধীন হয়। জয়পাল বহু চেষ্টায় উত্তররাঢ় উদ্ধার করেন, ও অর্থ বলে বহু ব্রাহ্মণ পণ্ডিতকে হস্তগত করেন । ছান্দোগ-পরিশিষ্ট প্রকাশে নারায়ণ লিখিয়াছেন,—র্তাহার পূর্বপুরুষ পরিতোষের বংশধর উমাপতি, মহারাজ জয়পাল হইতে প্রভূত দান গ্রহণ করিয়াছিলেন । উমাপতি পণ্ডিতাগ্রণী ও বহু শিষ্যের অধ্যাপক ছিলেন । তারানাথ বলেন,—দেবপাল উড়িষ্যা অধিকার করেন । ১০৩৫ খৃষ্টাব্দে কাষ্ঠফলকে মুদ্রিত কোন তিব্বতীয় ইতিহাসে লিখিত আছে, গৌড়েশ্বর দেবপাল বঙ্গদেশ হইতে সংগৃহীত সেনাবলের সাহায্যে মগধ ও বরেন্দ্রভূমি স্বরাজ্যভুক্ত করেন । মহীপালের তাম্রশাসনে আছে – “তস্মাচ্‌পেন্দ্র চরিতৈর্জগতীং পুনানঃ পুত্রে বভুব বিজয়ী জয়পালনাম । ধৰ্ম্মদ্বিষাং শমরিতা যুধি দেবপালে যঃ পূৰ্ব্বজে ভুবন-রাজ্যমুখান্তনৈষীং ॥