পাতা:গৌড়ের ইতিহাস (প্রথম খণ্ড).djvu/৭০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

· 8 গৌড়ের ইতিহাস । বাণভট্টের হর্ষ চরিতে পৌণ্ডবাসের উল্লেখ আছে। সম্ভবতঃ উহ পুণ্ডদেশীয় রেসমী বস্ত্র । পুগু দেশ ইক্ষু বিশেষের উৎপত্তির জন্য বিখ্যাত ছিল। সেই ইক্ষুকে পুণ্ড-ইক্ষু বলে। দেশের নামানুসারে পুণ্ড, ইক্ষুর নাম হইয়াছে, কি পুণ্ড, ইক্ষুর নামানুসারে দেশের নাম হইয়াছে, নিশ্চয় বলা যায় না । ব্রাহ্মণদের ললাটের ত্রিপুণ্ডে, পুণ্ড,-ইক্ষুত্রয়ের সাদৃপ্ত আছে। ব্যাকরণ মহাভাষ্যে পুও নগরবাসী বুঝাইতে পেগু,নাগর পদ হয়, খৃষ্টীয় প্রথম শতাব্দীতে পুণ্ডনগর যে সুতি প্রসিদ্ধ ছিল, তাহার সন্দেহ নাই । করতোয়া ও মহানন্দ পুণ্ড রাজ্যের পূর্ব ও পশ্চিম সীমাস্থিত নদী। মহাভারতে মহানন্দার নাম আছে। বনপর্বে আছে –পাণ্ডবেরা নন্দা ও অপর নন্দ পার হইয়া অধিবঙ্গ তীর্থে গিয়াছিলেন । নন্দ ও অপর নন্দার কোনটী মহানন্দ হওয়া সম্ভব । অধিবঙ্গ, বোধ হয়, বঙ্গের নিকটবৰ্ত্তী কোন স্থান। অনুশাসন পর্বের ২৫শ অধ্যায়ে আছে ;– “পুনরাবৰ্ত্ত নন্দাং চ মহানন্দাং চ সেবাবৈ । নন্দনে সেবাতে দান্তস্তৃপ্তসরোভিরহিংসকঃ ॥ উৰ্ব্বশীং কৃত্তিক যোগে গত্বাচৈব সমাহিতঃ। লৌহিত্যে বিধিবৎ স্নাত্বা পুণ্ডরীকফলং লভেৎ ” লৌহিত্য অর্থাৎ ব্রহ্মপুত্র নদের সঙ্গে উল্লিখিত হওয়ায়, আমরা উল্লিখিত মহানন্দাকে পুণ্ড-রাজ্যের মহানন্দ বলিয়া নিঃসংশয়ে গ্রহণ করিতে পারি। মহানন্দ নাম শুনিলেই বোধ হয়, প্রাচীনকালে ইহা ধনজনপূর্ণ সমৃদ্ধি সম্পন্ন একটী রাজ্যের ভিতর দিয়া প্রবাহিত ছিল, পুণ্ডই সেই রাজ্য। সভাপৰ্ব্বে ৫১তম অধ্যায়ে বঙ্গ, কলিঙ্গ, মগধ ও তাম্রলিপ্তের সঙ্গে এই দেশকে সুপুণ্ড, মামে উল্লেখ করা হইয়াছে। ইহাতে পুণ্ড দেশের প্রশংসাই করা হইয়াছে। মহানন্দার পশ্চিমপারে সাধারণতঃ আর্য