পাতা:চতুরঙ্গ - রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২৭

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


জ্যাঠামশায় জগমোহনের এক পিসি হরিমোহনের মহল হইতে আসিয়া কহিলেন, “ছি ছি, এ কী কাণ্ড জগাই। পাপ বিদায় করিয়া দে ।” t * জগমোহন কহিলেন, “তোমরা ধাৰ্মিক, তোমরা এমন কথা বলিতে পার, কিন্তু পাপ যদি বিদায় করি তবে এই পাপিষ্ঠের গতি কী হইবে।” কোনো এক সম্পর্কের দিদিমা আসিয়া বলিলেন, “মেয়েটাকে হাসপাতালে পাঠাইয়া দে, হরিমোহন সমস্ত খরচ দিতে রাজি অাছে।” জগমোহন কহিলেন, “মা যে ! টাকার সুবিধা হইয়াছে বলিয়াই খামক মাকে হাসপাতালে পাঠাইব ? হরিমোহনের এ কেমন কথা ।” দিদিমা গালে হাত দিয়া কহিলেন, “মা বলিস কাকে রে ।” জগমোহন কহিলেন, “জীবকে যিনি গর্ভে ধারণ করেন র্তাকে । যিনি প্রাণসংশয় করিয়া ছেলেকে জন্ম দেন তাকে । সেই ছেলের পাষণ্ড বাপকে তো আমি বাপ বলি না । সে বেটা কেবল বিপদ বাধায়, তার তো কোনো বিপদই নাই ।” হরিমোহনের সর্বশরীর ঘৃণায় যেন ক্লেদসিক্ত হইয়া গেল । গৃহস্থের ঘরের দেওয়ালের ও-পাশেই বাপপিতামহের ভিটায় একটা ভ্রষ্টা মেয়ে এমন করিয়া বাস করিবে ইহা সহ করা যায় কী করিয়া । এই পাপের মধ্যে শচীশ ঘনিষ্ঠভাবে লিপ্ত আছে এবং তার নাস্তিক জ্যাঠা ইহাতে তাকে প্রশ্রয় দিতেছে, এ কথা বিশ্বাস