পাতা:চন্দ্রনাথ-শরৎচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়.djvu/২২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

& లి চতুর্থ পরিচ্ছেদ । কয়ে না । তোমার হাতে দেওয়ার চেয়ে বাপ-মা আমাকে হাতপা বেঁধে জলে ফেলে দিলে ছিল ভাল । • 聯 ব্রজকিশোর মুখ কালি করিয়া উঠিয়া যায়। হরকালীর বয়স প্রায় ত্রিশ হইতে চলিল, কিন্তু সরযুর আজও পঞ্চদশ উত্তীর্ণ হয় নাই—তবু তাহার আসা অবধি দুই জনের মনে । মনে যুদ্ধ বাধিয়াছে। প্রাণপণ করিয়াও হরকালী জয়ী হইতে পারে । না । এক ফোটা মেয়ের শক্তি দেখিয়া হরকালী মনে মনে অবাকৃ হয়। বাহিরের লোক এ কথা জানে না যে, এই অন্তর-যুদ্ধে সরযু, ডিক্রি পাইয়াছে, কিন্তু তাহ জারি করে নাই । নিজের ੇ নিজে তামাদি করিয়া বিজিত অংশ তাহাকেই সে ফিরাইয়া দিয়াছে এবং এইখানেই হরকালীর একেবারে হার হইয়াছে। । হরকালী বুঝিতে পারে, সরযু বোবা কিম্বা হাৰা নহে। অনেকগুলি শক্ত কথাও সে এমন নিরুত্তর অবনতমুখে উত্তর দিতে সমর্থ । যে, হরকালী একেবারে স্তম্ভিত হইয়া যায়, কিন্তু না পারিল সে । এই মেয়েটির সহিত সন্ধি করিতে,ন পারিল তাছাকে জয় করিতে ; সরু যদি কলা-প্রিন্থ মুখরা হইত, স্বাধপর নির্দয় হইত, তাহা । হইলেও হরকাণী হয় ত একটা পথ খুজিয়া পৃাইত। কিন্তু সংযু । নিজে হইত্_েএতখানি করুণা তাহাকে দিয়া রাখিয়াছে যে, ইরকাণী অপরের করা ভিক্ষা করিবার আর অবকাশ পায় না। সরযু অন্তরে সম্পূর্ণ বুঝিতে পারে যে, এ বাটীর সেই সৰ্ব্বময়ী কী, । হরকালী কেহ না, তঃ টুরে লে কেহ ন ছুইয়া হরকালীকেই । সৰ্ব্বময়ী করিয়াছে। । ই হরকালী আরও ঈর্ষার জলিয়া ,