পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৫০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


> 8bア চয়নিক পরে মাস দেড়ে ভিটেমাটি ছেড়ে বা হির হইচু পথে— করিল ডিক্রি, সকল বিক্রি, মিথ্যা দেনার খতে । এ জগতে, হায়, সেই বেশি চায় আছে যার ভূরি ভূরি । রাজার হস্ত করে সমস্ত কাঙালের ধন চুরি । মনে ভাবিলাম মোরে ভগবান রাখিবে ন মোহগর্তে, তাই লিখি দিল বিশ্ব নিখিল দু-বিঘার পরিবর্তে । সন্ন্যাসীবেশে ফিরি দেশে দেশে হইয়া সাধুর শিয়া, কত হেরিলাম মনোহর ধাম, কত মনোহর দৃশু । ভূধরে সাগরে বিজনে নগরে যখন যেখানে ভ্ৰমি, তবু নিশিদিনে ভুলিতে পারিনে সেই বিঘা দুই জমি । হাটে মাঠে বাটে এই মতো কাটে বছর পনেরো ষোলো, একদিন শেষে ফিরিবারে দেশে বড়ই বাসনা হোলো । নমোনমো নমঃ, স্বন্দরী মম জননী বঙ্গভূমি । গঙ্গার তীর স্নিগ্ধ সমীর জীবন জুড়ালে তুমি । অবারিত মাঠ, গগন-ললাট চুমে তব পদধুলি, ছায়া-স্বনিবিড় শাস্তির নীড় ছোট ছোট গ্রামগুলি । পল্লবঘন আম্রকানন, রাখালের খেল-গেহ ; স্তন্ধ অতল দিঘি-কালোজল, নিশীথ-শীতল স্নেহ । বুকভর। মধু বঙ্গের বধু জল লয়ে যায় ঘরে, মা বলিতে প্রাণ করে আনচান, চোখে আসে জল ভরে । দুই দিন পরে দ্বিতীয় প্রহরে প্রবেশিহু নিজ-গ্রামে । কুমোরের বাড়ি দক্ষিণে ছাড়ি", রথ-তলা করি’ বামে, রাখি’ হাটখোলা নন্দীর গোল, মন্দির করি’ পাছে তৃষাতুর শেষে পন্থছিছ এসে আমার বাড়ির কাছে । ধিক ধিক্ ওরে, শতধিক তোরে, নিলাজ কুলট ভূমি, যখনি যাহার তখনি তাহার, এই কি জননী তুমি ।