পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৫৫

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক মণিদীপ-দীপ্তকক্ষে সমুদ্রের কল্লোল-সংগীতে অকলঙ্ক হাস্যমুখে প্রবাল-পালঙ্কে ঘুমাইতে কার অঙ্কটিতে । যখনি জাগিলে বিশ্বে, যৌবনে গঠিত পূর্ণ প্রস্ফুটিত ৷ যুগ যুগান্তর হতে তুমি শুধু বিশ্বের প্রেয়সী হে অপূর্ব শোভনা উর্বশি । মুনিগণ ধ্যান ভাঙি দেয় পদে তপস্যার ফল, তোমারি কটাক্ষপতে ত্ৰিভুবন যৌবনচঞ্চল, তোমার মদির গন্ধ অন্ধবায়ু বহে চারিভিতে, মধুমত্ত ভৃঙ্গসম মুগ্ধ কবি ফিরে লুব্ধ চিতে, উদাম সংগীতে । নূপুর গুঞ্জরি’ যা ও আকুল-অঞ্চল বিদুৎ-চঞ্চলা ॥ স্বরসভাতলে যবে নৃত্য করে পুলকে উল্লসি’ হে বিলোল-হিল্লোল উর্বশি । ছন্দে ছন্দে নাচি উঠে সিন্ধুমাঝে তরঙ্গের দল, শস্যশীর্ষে শিহরিয়া কঁাপি উঠে ধরার অঞ্চল, তব স্তনহার হতে নভস্তলে খসি পড়ে তারা, অকস্মাং পুরুষের বক্ষোমাঝে চিত্ত আত্মহারা, নাচে রক্তধারা । দিগন্তে মেখলা তব টুটে আচম্বিতে অয়ি অসঙ্গতে । স্বর্গের উদয়াচলে মূর্তিমতী তুমি হে উষসী, হে ভুবনমোহিনী উর্বশি। 〉の○