পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৫৬

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


S& 8 চয়নিক জগতের অশ্রদ্ধারে ধৌত তব তমুর তনিমা, ত্রিলোকের হৃদিরক্তে আঁক| তব চরণ-শোণিমা, মুক্তবেণী বিবসনে, বিকশিত বিশ্ব-বাসনার অরবিন্দ-মাঝখানে পাদপদ্ম রেথেছ তোমার অতি লঘুভার। অখিল মানসম্বর্গে অনন্ত-রঙ্গিণী, হে স্বপুসঙ্গিনি । ৪ই শুন, দিশে দিশে তোমা লাগি কঁদিছে ক্ৰন্দসী— হে নিষ্ঠুরা বধিরা উর্বশি। আদিযুগ পুরাতন এ জগতে ফিরিবে কি আর,— অতল অকূল হতে সিক্তকেশে উঠিবে আবার ? প্রথম সে তনুপানি দেখা দিবে প্রথম প্রভাতে, সর্বাঙ্গ কাদিবে তব নিখিলের নয়ন-আঘাতে বারিবিন্দু-পাতে । মকস্মাং মহাম্বুধি অপূর্ব সংগীতে র’বে তরঙ্গিতে ॥ ফিরিবে না ফিরিবে না—অস্ত গেছে সে গৌরবশশী, অস্তাচলবাসিনী উর্বশী । তাই আজি ধরাতলে বসন্তের আনন্দ-উচ্ছ্বাসে কার চিরবিরহের দীর্ঘশ্বাস মিশে ব’তে আসে । পূর্ণিমা নিশীথে যবে দশদিকে পরিপূর্ণ হাসি, দুরন্থতি কোথা হতে বাজায় ব্যাকুল-করা বাশি, ঝরে অশ্র-রাশি । তবু আশা জেগে থাকে প্রাণের ক্ৰন্দনে অয়ি অবন্ধনে ॥ ( ২৩ অগ্রহায়ণ, ১৩০২ ) —চিত্রা ।