পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/১৯২

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা হয়েছে, কিন্তু বৈধকরণ করা হয়নি।

১৭৬

চয়নিকা

সসংকোচে ভক্তবর কহিলেন তারে
“আরে আরে অপবিত্র, দূর হয়ে যা রে।”
সে কহিল “চলিলাম;”—চক্ষের নিমেষে
ভিথারী ধরিল মূর্তি দেবতার বেশে।
ভক্ত কহে, “প্রভু মোরে কী ছল ছলিলে।”
দেবতা কহিল, “মোরে দূর করি’ দিলে।
জগতে দরিদ্ররূপে ফিরি দয়া-তরে,
গৃহহীনে গৃহ দিলে আমি থাকি ঘরে।”

—চৈতালি

১৪ চৈত্র, ১৩০২


বৈরাগ্য

কহিল গভীর রাত্রে সংসারে বিরাগী
“গৃহ তেয়াগিব আজি ইষ্টদেব লাগি’।
কে আমারে ভুলাইয়া রেখেছে এখানে।”
দেবতা কহিল। “আমি।” শুনিল না কানে।
সুপ্তিমগ্ন শিশুটিরে আঁকড়িয়া বুকে
প্রেয়সী শয্যার প্রান্তে ঘুমাইছে সুখে।
কহিল “কে তোরা ওরে মায়ার ছলনা।”
দেবতা কহিল। “আমি।” কেহ শুনিল না।
ডাকিল শয়ন ছাড়ি’, “তুমি কোথা প্রভু,”
দেবতা কহিল। “হেথা।” শুনিল না তবু।
স্বপনে কাঁদিল শিশু জননীরে টানি’,
দেবতা কহিলা “ফিরো।” শুনিল না বাণী।
দেবতা নিঃশ্বাস ছাড়ি’ কহিলেন, “হায়,
আমারে ছাড়িয়া ভক্ত চলিল কোথায়॥”

—চৈতালি

১৪ চৈত্র, ১৩০২