পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২১

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে চলুন অনুসন্ধানে চলুন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।

চয়নিকা

           চয়নিক                      ৫

প্রতিদিন শুনিয়াছি আজে তোর কথা নারি বুঝিতে । প্রতিদিন শুনিয়াছি আক্তে৷ ভোর গান নারিহ্ন শিখিতে। চোখে লাগে ঘুমঘোর, প্রাণ শুধু ভাবে হয় ভোর। হৃদয়ের অতি দূর দূর দুরাস্তরে মিলাইয়া কণ্ঠস্বর তোর কঠম্বরে উদাসী প্রবাসী যেন তোর সাথে তোরি গান করে। অয সন্ধা, তোরি বেন স্বদেশের প্রতিবেশী তোরি যেন আপনার ভাই প্রাণের প্রবাসে মোর দিশী হারাইয়! বেড়ায় সদাই। শোনে যেন স্বদেশের গান, দূর হতে কার পায় সাড়া খুলে দেয় প্রাণ যেন কী পুরানো স্থাতি জাগিয়! উঠে বে এ গানে। ওই তারকার মাঝে যেন তার গৃহ ছিল, হাসিত কাদিত ওইখানে । আব বার ফিবে যেতে চায় পথ তবু খৃঁজিয়া না পায়। কত না পুরানো কথা, কত না হারানো গান, কত না প্রাণের দীর্ঘশ্বাস, শরমের আধো হাসি, সোহাগের আধো বাণী, প্রণয়ের আধো মু ভীষ মনধ্যা, তোর ওই অন্ধকারে হারাইগ্না গেছে একেবারে ।