পাতা:চয়নিকা-রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর.pdf/২১০

উইকিসংকলন থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এই পাতাটির মুদ্রণ সংশোধন করা প্রয়োজন।


চয়নিক প্রখর পিপাসা হানি’, পুষ্পের শিশির টানি’ গেছে মধ্যদিন । মাঠের পশ্চিম শেষে অপরাহ স্নান হেসে হোলো অবসান, পরপারে উত্তরিতে পা দিয়েছি তরণীতে, আবার আহবান ? নামে সন্ধ্য। তন্দ্রালস, সোনার আঁচল খসা, হাতে দীপশিখা, দিনের কল্লোল-’পর টানি’ দিল ঝিল্লীস্বর ঘন যবনিকা । ওপারের কালো কূলে কালি ঘনাইয়া তুলে নিশার কালিমা ; গাঢ় সে-তিমিরতলে চক্ষু কোথা ডুবে চলে নাহি পায় সীমা । নয়ন-পল্লব’পরে স্বপ্ন জড়াইয়। ধরে, থেমে যায় গান ; ক্লাস্তি টানে অঙ্গ মম প্রিয়ার মিনতিসম ; এখনো আহবান ? রে মোহিনী, রে নিষ্ঠুর ওরে রক্তলোভাতুরা কঠোর স্বামিনী, দিন মোর দিহু তোরে শেষে নিতে চাস হ’রে আমার যামিনী ? জগতে সবারি অাছে ংসারসীমার কাছে কোনোখানে শেষ, কেন আসে মর্মচ্ছেদি’ সকল সমাপ্ত ভেদি’ তোমার আদেশ ।